রবিবার, অক্টোবর ২০

প্রথম ট্রেকিংয়ে গিয়ে মৃত্যু তরুণের, গাফিলতির অভিযোগ ওঠায় আত্মঘাতী গাইড!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ট্রেকিংয়ে গিয়ে মৃত্যু হল বাগনানের এক যুবকের। ২৭ বছরের সৈকত সামন্ত বুধবার সিকিমের ফালুট থেকে নামার পথে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তার পরেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে সঙ্গীরা। একই সঙ্গে, ঘটনার পরেই সৈকতদের দলের গাইড মিংমা নরবু শেরপার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। পুলিশ জানিয়েছে, সম্ভবত ভয়েই আত্মঘাতী হয়েছেন ৪৫ বছরের ওই গাইড।

সিকিম পুলিশ সূত্রের খবর, মিংমা অক্সিজেন সিলিন্ডার সঙ্গে না নিয়ে যাওয়ায় সৈকত মারা গিয়েছেন বলে অভিযোগ তুলেছিলেন সৈকতের সঙ্গীরা। সম্ভবত সেই ভয়েই চরম সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন মিংমা।

সৈকতের পরিবার জানিয়েছে, ২০ ডিসেম্বর সৈকতরা আট জন মিলে রওনা দেন ফালুটে ট্রেকিং করবেন বলে। ২২ তারিখ গাইড মিংমা এবং চার জন কুলি নিয়ে দলটি ট্রেকিং শুরু করে। দলের এক সদস্য জানিয়েছে, প্রথম দিন অর্থাৎ ২৩ তারিখ কালিঝোর হয়ে ফালুট পৌঁছনোর পরে, কারও কথা না শুনেই ঠান্ডা জলে মাথা ভিজিয়েছিলেন সৈকত। তার পরেই তিনি অসুস্থ হয়ে প়ড়েন। ওষুধ খেয়ে খানিকটা সুস্থ হলেও, পরের দিন ওখানেই থেকে যায় গোটা দলটি। ২৫ তারিখ নামতে শুরু করার কিছু পরেই শ্বাসকষ্ট শুরু হয় সৈকতের। 

এক দিন গোর্খেতে থেমে, পরের দিন ঘোড়ায় চড়িয়ে নামানো হচ্ছিল সৈকতকে। সকাল সাড়ে ন’টা নাগাদ হঠাৎই ঘোড়ার পিঠে ঢলে পড়েন সৈকত। তাঁকে নামিয়ে কিছুটা দূরে গেজিং হাসপাতাল নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা  মৃত বলে ঘোষণা করেন।’’ ইতিমধ্যেই, এই দৌড়ঝাঁপের ফাঁকেই কোনও এক সময়ে জঙ্গলের একটি গাছে গলায় দড়ি দেন গাইড মিংমা।

এটাই প্রথম ট্রেকিং ছিল সৈকতের। দলের সদস্যেরা অভিযোগ জানান, সৈকতের যখন শ্বাসকষ্ট শুরু হয়, তখন গাইডকে বারবার বলা সত্ত্বেও তিনি কোনও রকম ব্যবস্থা নেননি। এমনকা ট্রেকিং শুরু সময়েও অক্সিজেনের কথা বলা হলে তিনি শোনেননি। জানান, এই ট্রেকে অক্সিজেন লাগে না।

অভিজ্ঞ পর্বতারোহীরা অবশ্য জানাচ্ছেন, ফালুটের মতো উচ্চতায় অক্সিজেন নেওয়া মোটেই জরুরি নয়। সে দিক থেকে গাইডের গাফিলতি ছিল, এ কথা বলা যায় না। তবে পাহাড়ে কখন কী ঘটে, কেউ জানে না। তাই অনেক বেশি সতর্ক থাকতে হয়। সব চেয়ে খারাপ বিষয় হল, ট্রেক করে একটি নির্দিষ্ট উচ্চতায় পৌঁছেই ঠান্ডা জলে মাথা ধোওয়া। এর ফলে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে, ইডিমা পর্যন্ত হতে পারে। সম্ভবত সেটাই হয়েছিল সৈকতের। তবে ২৩ তারিখ সৈকত অসুস্থ হওয়ার পরেও ২৪ তারিখেই কেন আপৎকালীন ভিত্তিতে তাঁকে নীচে নামানো হল না, সে প্রশ্নও তুলেছেন অনেকে।

 

Comments are closed.