শনিবার, এপ্রিল ২০

জঙ্গিদের পাকিস্তানে ঘাঁটি বানাতে দেব না, এতদিন পরে বললেন ইমরান

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ১৪ মার্চ পুলওয়ামায় জঙ্গি হানার পরে কেটেছে প্রায় তিন সপ্তাহ। এতদিন পরে আন্তর্জাতিক মহলের চাপে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বললেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। শুক্রবার তিনি বলেন, কোনও গোষ্ঠী এই দেশে ঘাঁটি বানিয়ে বিদেশে আক্রমণ চালাবে, এমনটা বরদাস্ত করব না। এর আগে পাকিস্তানের সরকার জইশ ই মহম্মদ ও আরও কয়েকটি জঙ্গী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে বলে জানা যায়।

গত সোমবার পাকিস্তান সরকার ঘোষণা করে, কেউ সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ করলে বরদাস্ত করা হবে না। বৃহস্পতিবার জানা যায়, নিষিদ্ধ গোষ্ঠীগুলি যে সব ধর্মীয় শিক্ষায়তন চালাত, তার মধ্যে ১৮২ টি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আটক করা হয়েছে ১২০ জনকে। এদিন এক জনসভায় ইমরান বলেন, আমার সরকার কোনও সন্ত্রাসবাদী সংগঠনকে পাকিস্তানের মাটি ব্যবহার করতে দেবে না। ঈশ্বরের ইচ্ছায়, পাকিস্তানে নতুন যুগের সূচনা হবে।

এর আগেও পাকিস্তান ঘোষণা করেছে, জঙ্গিদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ভারতের সংসদ ভবনে সন্ত্রাসবাদী হামলার পরে ২০০২ সালের শুরুতেও পাকিস্তান ঘোষণা করে, জঙ্গিদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তারপরে পাকিস্তানে কয়েকটি জঙ্গি ঘাঁটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। কিন্তু কিছুদিন যেতে না যেতেই ফের সন্ত্রাসবাদীরা সক্রিয় হয়ে ওঠে।

এবারও পাকিস্তান সত্যিই জঙ্গিদের বিরুদ্ধে কতদূর ব্যবস্থা নেবে, তা নিয়ে সন্দিহান ভারত। অনেকেই মনে করেন, আন্তর্জাতিক মহলের চাপ এড়াতে ওপর ওপর কিছু পদক্ষেপ করা হবে ঠিকই কিন্তু কিছুদিন পরেই ফের পাকিস্তানে সক্রিয় হয়ে উঠবে জঙ্গিরা।

বহুকাল ধরেই জঙ্গি গোষ্ঠীগুলি পাকিস্তানের মাটিতে সক্রিয়। সেই আটের দশকে আফগানিস্তানে তৎকালীন সোভিয়েত ফৌজের সঙ্গে লড়াই করার জন্য পাকিস্তানের মাটিতে জঙ্গি ঘাঁটি তৈরি হয়েছিল। তার পিছনে মদত ছিল আমেরিকারও। পাকিস্তানের প্রাক্তন একনায়ক জিয়াউল হকের সময় থেকে ভারতের বিরুদ্ধে জেহাদিদের ব্যবহার করা শুরু হয়। প্রতিবেশী দেশ ভারতের অভ্যন্তরে স্থিতিশীলতা নষ্টের জন্য পাকিস্তানের সেনাবাহিনী ও গোয়েন্দারা জঙ্গিদের মদত দেওয়া শুরু করে।

পাকিস্তানের সেনাবাহিনী ও গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের এক বড় অংশ এখনও জঙ্গি গোষ্ঠীগুলির সঙ্গে সম্পর্ক রেখে চলে। পাকিস্তানে এখন সংসদীয় গণতন্ত্র চালু থাকলেও সেনাবাহিনীর ক্ষমতা আছে যথেষ্ট। সেনাকর্তাদের চটানো ইমরানের পক্ষে সম্ভব নয়। তাই অনেকে মনে করেন, চাইলেই জঙ্গিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারবেন না ইমরান।

Shares

Comments are closed.