শনিবার, ডিসেম্বর ৭
TheWall
TheWall

ফের শ্লীলতাহানির অভিযোগ দিল্লিতে, অভিযুক্তকে পেটালো মহিলা

রাজধানী কি আদৌ সুরক্ষিত নয় মহিলাদের জন্য? রোজকার ঘটনা বারবার তুলছে প্রশ্ন। নিউ দিল্লি মেট্রো স্টেশনের কাছে এক মহিলাকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠলো এক রিকশাচালকের বিরুদ্ধে। অভিযুক্তকে ধরে থানায় নিয়ে যান মহিলা। কিন্তু পুলিশের তরফে কোনও সাহায্য পাননি বলে অভিযোগ ওই মহিলার।

মহিলার বক্তব্য মেট্রো থেকে নেমে পাহাড়গঞ্জ যাওয়ার জন্য তিনি রিকশা ভাড়া করতে যান। কিন্তু রিকশাচালক তাঁর কাছে ১৮০ টাকা চান। ওই ব্যক্তি মদ্যপ বুঝতে পেরে মহিলা সামনের দিকে এগিয়ে যান। কিন্তু ওই রিকশাচালক তাঁর পেছন পেছন এসে তাঁকে উত্যক্ত করতে থাকে। বারবার তাঁকে রিকশায় ওঠার কথা বলে বিরক্ত করে।

এই ঘটনায় আত্মরক্ষার জন্য ওই মহিলা প্রথমে হাতের জলের বোতল দিয়ে রিকশা চালককে মারেন। তারপর স্থানীয় কিছু মানুষের সাহায্যে তাকে কাছের থানায় নিয়ে যান। কিন্তু সেখানে গিয়ে এক অদ্ভুত অভিজ্ঞতা হয় তাঁর। প্রায় ৪৫ মিনিট থানায় বসে থাকলেও একজন পুলিশের দেখাও পাননি তিনি। হেল্পলাইনে ফোন করলে তাঁকে জানানো হয় যে শিগগির তাঁকে সাহায্য করতে পুলিশ যাচ্ছে। কিন্তু কোনও সাহায্য এসে পৌঁছায়নি বলে অভিযোগ।

বাধ্য হয়ে তিনি ফোন করেন নিউ দিল্লি মেট্রো রেল পুলিশকে। কিন্তু কেউ তাঁর ফোন ধরেননি। থানায় বসে অভিযুক্ত রিকশা চালক মহিলাকে উদ্দেশ করে বলছিলেন যে কেউ আসবে না তাঁকে সাহায্য করতে। তখন মেজাজ হারিয়ে মহিলা থানা থেকেই একটা লাঠি নিয়ে বেধরক মারেন তাকে। অভিযুক্তের হাত থেকে রক্ত বেরাতে শুরু করে। অনেক কাকুতি মিনতি করার পর মহিলা ছাড়েন তাকে।

পুরো ঘটনার বিবরণ নিজের ট্যুইটার অ্যাকাউন্টে লেখেন ওই মহিলা। মুহুর্তেই ভাইরাল হয়ে যায় পোস্টটি। দিল্লি পুলিশের ডেপুটি কমিশনার মধুর ভার্মা জানান, ওই মহিলার সঙ্গে তিনি কথা বলেছেন। তদন্তও শুরু হয়েছে। কারও কাজে অবহেলা প্রমাণিত হলে তাঁদের বিরুদ্ধে যথাযোগ্য ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যদিও পুলিশের তরফে জানানো হয় যে মহিলা ভুল করে ওই রিকশা চালককে বিট অফিসারের ঘরে নিয়ে চলে গিয়েছিলেন। সেখানে পেট্রোলিংয়ের মাঝে তাঁরা বিশ্রাম করেন। সেই জন্যই তিনি সেখানে কোনও পুলিশকে খুঁজে পাননি। কিন্তু পরে পুলিশের তরফে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়। গাফিলতির দায়ে এক অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব ইন্সপেক্টর ও এক কন্সটেবলকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।

Leave A Reply