শনিবার, মার্চ ২৩

জওহরলাল নেহরুর বুকপকেটে গোলাপ কেন, গোলাপ দিবসে জানিয়ে দিল কংগ্রেস

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভ্যালেন্টাইন্স ডের আগে গোটা এক সপ্তাহ ধরে চলে এরকমই প্রেমের নানা রকম ভাবপ্রকাশের দিন। কোনও দিন সেটা গোলাপ, তো কোনও দিন আলিঙ্গন, কোনও দিন আবার চুম্বন। সে ভাবেই গত কালই সদ্য পেরিয়েছে গোলাপ দিবস। আর সেই দিন উপলক্ষেই সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট শেয়ার করে নেটিজেনদের মন জিতে নিয়েছে কংগ্রেস। তারা পোস্ট করে জানিয়েছে, ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী পণ্ডিত জওহরলাল নেহেরু কেন সব সময়ে জ্যাকেটে গোলাপ গুঁজে রাখতেন।

জওহরলাল নেহেরুর যত ছবি দেখা যায়, তার মধ্যে প্রায় সব ক’টিতেই তাঁর জ্যাকেটে একটি গোলাপ দেখা যায়। কিন্তু এর কারণ কী? অনেকেই বলেন লাল গোলাপ নেহেরুর প্রিয় ফুল বলেই নিজের কাছে রাখতেন সব সময়। এত দিন এমনটাই জানা ছিল অনেকেরই।

কিন্তু ইন্সটাগ্রামে জওহরলাল নেহেরুর একটি ছবি পোস্ট করেছে কংগ্রেস। রোজ় ডে উপলক্ষে পোস্ট করা ওই ছবিতেও দেখা যায়, নেহেরুর জ্যাকেটে লাল গোলাপ ফুল গুঁজে রাখা আছে। সেই ছবির সঙ্গে, ওই ফুল রাখার আসল কারণও ব্যখ্যা করেছে কংগ্রেস। জানিয়েছে, ১৯৩৮ সালে মারা যান জওহরলাল নেহেরুর স্ত্রী কমলা নেহেরু। প্রয়াত স্ত্রী কমলা নেহেরুর স্মৃতিতেই জওহরলাল সব সময় তাঁর কোটে গোলাপ ফুল রাখতেন। ওই ইনস্টাগ্রাম পোস্টে কংগ্রেস লিখেছে, “জওহরলাল নেহেরু তাঁর স্ত্রী কমলা নেহেরুর স্মৃতিতেই বুকে একটি গোলাপ রাখতেন। ১৯৩৮ সালে দীর্ঘ রোগভোগের পরে মারা যান কমলা নেহেরু।”

দেখে নিন সেই পোস্ট।

পুরনো এই ছবি পোস্ট করার কয়েক মিনিটের মধ্যেই হাজার হাজার মানুষ ছবিটি লাইক করেন। কমেন্টও করেন অনেকে। প্রায় সকলেই ওই পোস্টে নিজেদের ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

তবে কংগ্রেস যে এই প্রথম যে স্মৃতির অ্যালবাম খুঁড়ে পুরনো ছবি বার করেছে, তা নয়। এর আগেও অন্য একটি পুরনো ছবি তারা শেয়ার করেছে। সোনিয়া গান্ধীর দু’টি পুরনো ছবি শেয়ার করে কংগ্রেস লিখেছিল, ‘রাজীব গান্ধীর ক্যামেরায় সোনিয়া গান্ধী।’
দেখুন সেই দু’টি ছবি।

জানুয়ারিতে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর রাজনৈতিক অভিষেকের এক দিন পরেই কংগ্রেস আরও একটি পুরনো, সাদা কালো ছবি প্রকাশ করে। ছবিতে নেহেরুর কন্যা ইন্দিরা গান্ধীর সঙ্গে খেলতে দেখা যায় প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে।

দেখুন সেই ছবি।

কিন্তু এ সব ছবিকে ছাপিয়ে গিয়েছে জওহরলাল নেহেরুর ছবি এবং তাঁর গোলাপ প্রীতির রহস্য। অনেকেই বলছেন, কংগ্রেস গোলাপ দিবসের সেরা পোস্টটা করেছে।

Shares

Comments are closed.