মঙ্গলবার, অক্টোবর ২২

সঙ্গী ব্যথা পেলে যৌন মিলন যন্ত্রণার: কী করবেন, কী করবেন না

দ্য ওয়াল ব্যুরো: যৌনতা তো রোজনামচার একটা অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ।  কিন্তু এখানে আপনার মহিলা সঙ্গীর কেন অস্বস্তি হচ্ছে, কোথায় তাঁর ব্যথা লাগছে সেটা কখনো ভেবেছেন কি?  সেক্সুয়াল মেডিসিনের একটি জার্নালে এক সমীক্ষার রিপোর্ট পেশ করে বলা হয়েছে, প্রায় ৩০ শতাংশ মহিলা যোনিপথে ইন্টারকোর্সের সময়ে ব্যথা পান।!
মহিলাদের যৌনমিলনের সময়ে যে কারণগুলোর জন্য ব্যথা হয়, সেগুলো জানা থাকলে সমস্যার সমাধান হতে পারে সহজেই।

ফোর প্লে সঠিক ভাবে করতে হবে
ফোরপ্লে ঠিক করে না করলে, সহজাতভাবে কখনোই একজন মহিলার ফ্লুইড সিক্রিশন হবে না।  তাতে ভ্যাজাইনাল ওয়াল বা যোনির দেওয়াল শুকনো থাকবে, ঘর্ষণ বেশি হবে।  ব্যথা করবে।  তাই যত বেশি সময় ধরে সম্ভব আপনার সঙ্গীর জন্য অন্তত ফোর প্লে আপনাকে করতেই হবে।

ভ্যাজাইনাল ড্রাইনেস
যোনি যদি বারবার শুকিয়ে যায়, তাহলে সমস্যা বাড়বেই।  কখনওই ইন্টারকোর্স স্মুথ হবে না।  তাই চেষ্টা করুন সেটা কাটিয়ে উঠতে।  এই সমস্যা এড়াতে চেষ্টা করুন গরম জলে স্নান না করতে।  চেষ্টা করুন বেশি সময় ধরে ফোর প্লে করতে।  এছাড়াও বেশ কিছু ওষুধ আছে, যা ভ্যাজাইনা ড্রাই করে দেয়।  ডাক্তারকে বলে সেই ওষুধ গুলো বন্ধ করতে হবে যত দ্রুত সম্ভব।  এমনকি প্রয়োজন হলে ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলে সম্ভব হলে চেষ্টা করুন কোনও লুব্রিকেন্ট ব্যবহার করতে।  তাতে অন্তত ব্যথা কমবে।

ডেলিভারির পরে ইন্টারকোর্স
সন্তানের জন্ম দেওয়ার পরে ভ্যাজাইনা খুব নরম থাকে স্বাভাবিকভাবেই।  সে নর্ম্যাল ডেনিভারি হোক, বা সি-সেকশন।  তাই এই ডেলিভারির পরে অবশ্যই ছ সপ্তাহ পরে ইন্টারকোর্সের চেষ্টা করুন, কিন্তু তার আগে একেবারেই নয়।  আর ছ সপ্তাহ পরেও যদি ব্যথা করে , তাহলে সেটা স্বাভাবিক নয়।  তখন ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করুন।  সে সময়ে আপনার ওষুধের প্রয়োজন হতে পারে।  হতে পারে থেরাপি করাতে হল, এমনকি একটা দ্বিতীয় অপারেশনও করাতে হতে পারে।

স্ট্রেস
সারাদিনের স্ট্রেস বা ক্লান্তি নিয়ে বিছানায় যাবেন না।  এতে আপনার সমস্যা বাড়বে বই কমবে না।  সারাদিনের ক্লান্তি যখন আপনার মাথায় থাকবে, কখনোই আপনি আনন্দে থাকতে পারবেন না পার্টনারের সাথে।  তাই চেষ্টা করুন সেই ক্লান্তি এড়িয়ে সময়টা উপভোগ করতে।  প্রয়োজনে মাসাজ, মেডিটেশন, যোগ করতে পারেন।  তাতে আপনার রিল্যাক্স্ড মুড থাকবে।  রিল্যাক্স্ড মুড থাকলে আর ব্যথা করবে না।

স্কিনের সমস্যা
ভ্যাজাইনার সুরক্ষার জন্য অনেক সময়ে অনেক লুব্রিকেন্ট বা সাবান ব্যবহার করেন অনেকেই, কিন্তু সেগুলো আদৌ কতটা কাজে আসে আর কতটা ক্ষতি করে, তা জেনে নেওয়া দরকার।  অনেক ছোঁয়াচে রোগও থাকে অনেক সময়ে।  তাই সে সব রোগে আপনাকে অনেক বেশি সচেতন থাকতে হবে।  নইলে সমস্যা ছড়িয়ে পড়বে, আর আপনার ব্যথাও হবে।  ফলে কোনওভাবেই আর আনন্দ পাওয়া যাবে না।  তাই চেষ্টা করুন ব্যথা এড়াতে স্কিনের সমস্যা এড়িয়ে চলতে।

মেনোপজ় এবং এসটিডি
একজন মহিলার মেনোপজ় বা পিরিয়ডস বন্ধ হওয়ার সময়ে এই ব্যথা করতে পারে।  তাই এ সময়ে কোনওভাবেই ইন্টারকোর্সে ব্যথা হতে পারে।  কারণ ভ্যাজাইনার দেওয়াল এ সময়ে অতিরিক্ত বেশি পরিমাণে সেন্সিটিভ হয়ে থাকে।  ব্যথা হয়।
এছাড়াও কোনও সেক্সুয়ালি ট্রান্সমিটেড ডিসিজ় থাকলে সেটা ব্যথা বাড়ায়।  তাই এ সময়ে ইন্টারকোর্স না করাই ভালো।

অতএব বিষয়গুলো মাথায় রেখে পার্টনারকে নিয়ে আনন্দে মাতুন।  তবে অবশ্যই খেয়াল রাখুন, যাতে ব্যথা না হয়, আর হলেও ডাক্তারের পরামর্শ নিতে ভুলবেন না।

Comments are closed.