বুধবার, অক্টোবর ১৬

পার্টি অফিসের সামনে খুন খানাকুলের দাপুটে তৃণমূল নেতা মনোরঞ্জন পাত্র, অভিযোগের তির বিজেপির দিকে

দ্য ওয়াল ব্যুরো, আরামবাগ: দলীয় কার্যালয়ের সামনে খুন হলেন খানাকুল ২ পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য ও এলাকার দাপুটে তৃণমূল নেতা মনোরঞ্জন পাত্র (৫৬)। লাঠি, বাঁশ, রড দিয়ে তাঁকে পিটিয়ে মারা হয়েছে বলে অভিযোগ। তৃণমূলের দাবি, বিজেপির দুষ্কৃতীরাই এই কাণ্ড ঘটিয়েছে।

খানাকুল থানার হরিশ্চক গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে শনিবার রাত ৮টা নাগাদ। খবর পেয়েই উত্তরপাড়া থেকে খানাকুলে রওনা দেন আরামবাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত তৃণমূল নেতা দিলীপ যাদব। তাঁর অভিযোগ, বিজেপি আশ্রিত সশস্ত্র দুষ্কৃতীরা বাইকে চেপে এসে বেধড়ক মেরে খুন করেছে মনোরঞ্জন বাবুকে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, এ দিন পার্টি অফিসের সামনে মনোরঞ্জন বাবুকে ঘিরে ধরে দুষ্কৃতীরা। লাঠি, বাঁশ দিয়ে তাঁকে এলোপাথাড়ি মারতে শুরু করে। চিৎকার শুনে এলাকার লোকজন ছুটে এলে দুষ্কৃতীরা পালিয়ে যায়। রক্তাক্ত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে খানাকুল গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

এই ঘটনার পরই ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে বিশাল পুলিশবাহিনী।  কিছুদিন আগে বালিপুরে দুই দলের মধ্যে ব্যাপক বোমাবাজি হয়।লোকসভা ভোটের পরে খানাকুলে শক্তি বেড়েছে বিজেপির।মুকুল রায়ের হাত ধরে দিল্লি গিয়ে তৃনমূলের স্থানীয় দুই নেতা বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন।

ঘটনা প্রসঙ্গে দিলীপ যাদবের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, “আমি খানাকুলে রয়েছি। নিহত তৃণমূল কর্মী মনোরঞ্জন পাত্রর ছেলেরা আমার সঙ্গে রয়েছেন। আইনি পথে আমরা এর মোকাবিলা করব।” তাঁকে প্রশ্ন করা হয়, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আপনাকে আরামবাগ মহকুমার দায়িত্ব দেওয়ার পর দুই তৃণমূল কর্মী খুন হলেন। এক, আরামবাগের হরিণখোলায়, দুই খানাকুলে মনোরঞ্জন পাত্র। কী বলবেন? বাংলায় আইনের শাসন ভেঙে পড়েছে? জবাবে উত্তরপাড়া পুরসভার চেয়ারম্যান দিলীপ যাদব বলেন, “বিক্ষিপ্ত ঘটনা দিয়ে সরলীকরণ করা ঠিক হবে না। বিজেপির দুষ্কৃতীরা এই ঘটনা ঘটিয়েছে। সাংগঠনিক, প্রশাসনিক এবং আইনি পথেই এই লড়াই আমরা লড়ব।”

তবে তৃনমূল নেতা খুনের ঘটনায় বিজেপির কোনও যোগ নেই বলেই দাবী করেছেন, বিজেপি আরামবাগ জেলা সভাপতি বিমান ঘোষ। তাঁর কথায়, ” বিজেপি খানাকুলে শক্তি বাড়িয়েছে ঠিকই, তবে এই খুন তৃনমূলের মাদার যুব-র অন্তর্দ্বন্দ্বের ফলে হয়েছে।দীর্ঘদিন ধরেই খানাকুলে শাসক দলের মধ্যে অশান্তি চলছে, এই ঘটনা তারই প্রতিফলন।”

Comments are closed.