মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২১
TheWall
TheWall

বিচিত্রপুর: দিঘার কাছে নতুন এই পর্যটনকেন্দ্রে একবার না গেলেই নয়

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বাঙালির প্রিয় ট্যুরিস্ট স্পট দিঘা। আর দিঘা বেড়াতে গিয়ে অনেকেই তালসারি, উদয়পুর ঘুরতে যান। এবারে দিঘা অথবা তালসারি গেলে অবশ্যই বিচিত্রপুর ঘুরে আসুন। মন ভরে যাবে। আটকে রাখতে চাইবে ‌বিচিত্রপুরের বিচিত্র প্রকৃতি।

নদী যেখানে সাগরে মিশেছে।

একেবারে নতুন পর্যটনকেন্দ্র হিসাবে ওড়িশা সরকার গড়ে তুলছে বিচিত্রপুরকে। দিঘা থেকে দূরত্ব ১৬ কিমি, তালসারি থেকে ৮ কিমি মতো।

এ এক বিচিত্র স্পট। পা ফেললেই কানে ভেসে আসে পাখির কিচিরমিচির শব্দ। জল, জঙ্গল, পাখি নিয়ে এক অদ্ভূত রোমাঞ্চ ঘিরে রয়েছে বি

কী ভাবে যাবেন

ট্রেনে ওড়িশার জলেশ্বর স্টেশন থেকে ৪৮ কিলোমিটার। সড়ক পথে এক ঘণ্টা সময় লাগে। হাওড়া থেকে ট্রেনে দিঘা। তার পরে সড়ক পথে ১২ কিমি। তাজপুর থেকে সড়ক পথে যেতে হলে দূরত্ব মোটামুটি ২০ কিলোমিটার। তালসারি হয়েও যেতে পারেন।

লাল কাঁকড়ার দেশে যা।

সেখান থেকেও মাত্র ৮ কিমি দূরে রয়েছে বিচিত্রপুর৷ চন্দনেশ্বর মন্দিরের গা দিয়ে রাস্তা বরাবর এগিয়ে যেতে হবে৷ পাবেন আঁকাবাঁকা পথ গ্রামের পথ৷ আর তারপরই রোদ আর ছায়ার মিশেলে ম্যানগ্রোভ ফরেস্ট৷ শুরু বিচিত্রপুরের বিচিত্র রহস্য৷ এই ম্যানগ্রোভ ফরেস্টে পাবেন ওড়িশা ফরেস্ট ডিপার্টমেন্টের একটি টিকিট কাউন্টার৷ ৮ সিটের ফাইবার স্পিড বোট ছাড়ে সেখান থেকে৷ ১২০০ টাকা প্রতি ট্রিপ৷ টিকিট কেটে উঠে পড়ুন সেই বোটে৷

বিচিত্র পাখির বিচিত্রপুর।

স্পিড বোট আপনাকে নিয়ে যাবে মোহনার কাছে৷ সুবর্ণরেখা সেখানে সাগরে মিশেছে। মনে হতে পারে আপনি যেন সুন্দরবনে। এমন মনে হওয়ার সময়েই স্পিট বোড আপনাকে নামিয়ে দেবে একটি দ্বীপে৷ এরই নামই বিচিত্রপুর৷ অদ্ভূত জ্যামিতির নকশায় দাঁড়িয়ে রয়েছে দ্বীপটি৷ নামার সঙ্গে সঙ্গেই কানে আসবে পাখিদের কলকাকলি৷ তবে এখানে আপনি জোয়ারের সময় আসতে পারবেন না৷ এই দ্বীপের আসল রহস্য দিনে মাত্র ৬ ঘণ্টা জেগে থাকে এই দ্বীপটি৷

না, বাকিটা বলে দেওয়ার দরকার নেই। সেটা অনুভবে আসুক বেড়াতে গিয়ে। সঙ্গে লাল কাঁকড়া, সূর্যমুখীর ক্ষেত, পরিযায়ী পাখির দর্শন হবে উপরি পাওনা।

Share.

Comments are closed.