সোমবার, নভেম্বর ১৮

ভোডাফোন আর থাকবে না, ব্যবসা গুটিয়ে ছাড়তে পারে দেশ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভারত থেকে ব্যবসা গুটিয়ে নেওয়ার পথে ভোডাফোন। দীর্ঘদিন ধরে ক্রমাগত আর্থিক ক্ষতির কারণেই এই সিদ্ধান্ত বলে জানা গিয়েছে। টেলিযোগাযোগ দুনিয়ায় এ নিয়ে জল্পনা চলছিল অনেক দিন ধরেই। শেষমেশ সেই জল্পনাতেই সিলমোহর বসাতে চলেছেন ভোডাফোন কর্তৃপক্ষ।

বেশ কয়েক মাস ধরে প্রতিযোগিতার বাজারে মন্দা দশা চলছে ভোডাফোনের। বহু গ্রাহক হারিয়েছে খুব অল্প সময়ে। ভোডাফোনের পার্টনার সংস্থা আইডিয়াও লক্ষাধিক গ্রাহক হারিয়েছে গত কয়েক মাসে। একটি সূত্রের খবর, বাজারে লাভের মুখই দেখছে না এই সংস্থা। ভোডাফোন তার ঋণদাতাদের কাছে ঋণের বোঝা কমানোর জন্যও আবেদন করেছে বলে টেলিকম সেক্টরের অন্দরে শোনা যাচ্ছে।

তবে ভোডাফোন একটি বিবৃতি জারি করে বুধবার জানিয়েছে, তারা সাময়িক ভাবে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন ঠিকই, তবে সে জন্য ঋণ কমানোর কোনও আবেদন কারও কাছে তারা করেনি। এই বিষয়টি পুরোপুরি মিথ্যে বলে দাবি করেছে ভোডাফোন। বরং ঋণদাতাদের বকেয়া অর্থ ফেরত দিয়ে হিসেব মিটিয়ে নেওয়া হবে বলে দাবি করেছে তারা।

পড়ুন: কন্যাসন্তান জন্মালে ১১১টি গাছ লাগানো হয় এই গ্রামে! লিঙ্গবৈষম্য দূর করার অস্ত্র যেন প্রকৃতি

২৫শে অক্টোবর সুপ্রিম কোর্ট এক রায়ে লাইসেন্স ফি ও স্পেকট্রাম ব্যবহারের চার্জ বাবদ ভোডাফোন-আইডিয়াকে ‘অ্যাডজাস্টেড গ্রস রেভেনিউ’-এর (এজিআর) জন্য ২৮,৩০৯ কোটি বকেয়া টাকা দ্রুত মেটানোর কথা বলে। মনে করা হচ্চে, এই রায়েই ঘোর বিপাকে পড়েছে ভোডাফোন। কারণ এই রায় মানতে হলে তিন মাসের মধ্যে তাদের মেটাতে হবে প্রায় ৩৯,০০০ কোটি টাকা। ফলে, চলতি বছরে নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ ও আধুনিকীকরণের জন্য রাইটস ইস্যুর মাধ্যমে ভোডাফোন আইডিয়া যে ২৫,০০০ কোটি টাকা তুলেছিল, তার সবটাই চলে যাবে সরকারের দেনা মেটাতে।

এই অবস্থায় তাদের পক্ষে আর ব্যবসা চালিয়ে যাওয়া সম্ভব নয় বলেই মনে করছেন টেলি-বিশেষজ্ঞরা। এই নিয়ে বেসরকারি সংবাদ সংস্থা আইএএনএস ইমেল করে প্রশ্নও করে ভারতে ভোডাফোনের মুখপাত্রকে। কিন্তু এর উত্তর না দিয়ে সরাসরি বলে দেওয়া হয়, ভোডাফোনের কর্পোরেট যোগাযোগ গোষ্ঠীর প্রধান বেন প্যাডোভ্যানের সঙ্গে এই বিষয়ে যোগাযোগ করতে।

এর পরেই সন্দেহ আরও ঘনিয়েছে। তাহলে কি সত্যিই থাকবে না ভোডাফোনের অস্তিত্ব!

Comments are closed.