রবিবার, নভেম্বর ১৭

সৌরভকে নিয়ে আমার ভবিষ্যদ্বাণী মিলে গেছে, আর একটা কথাও আজ বলে রাখছি: সেহওয়াগ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে নিয়ে বীরেন্দ্র সেহওয়াগের প্রথম ভবিষ্যদ্বাণী মিলে গিয়েছে। এবার দ্বিতীয় ভবিষ্যদ্বাণী মেলার অপেক্ষায় প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেট দলের ওপেনার। আর সেটা কী নিজেই জানিয়েছেন একটি সর্বভারতীয় ইংরাজি মাধ্যমে কলম লিখে। সেহওয়াগ লিখেছেন, ২০০৭ সালে বলেছিলাম দাদা ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি হবেন। হয়েছেন। মিলে গেছে সেই ভবিষ্যদ্বাণী। আর একটা ভবিষ্যদ্বাণী আছে আমার। দাদা একদিন ঠিক পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হবেন।”

সেহওয়াগ ওই নিবন্ধে লিখেছেন, “২০০৭ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টেস্ট চলছিল। কেপটাউন টেস্টের শুরুতেই আমি আর ওয়াসিম জাফর আউট হয়ে যাই। চার নম্বরে ব্যাট করতে নেমে আউট হয়ে যান শচীনও। তারপরই সৌরভ বলেন, তিনি ব্যাট করতে নামবেন। সেটা ছিল সৌরভের কামব্যাকের সিরিজ। মাথার উপরে চাপ ছিল ভয়ানক। তাও ওই সময়ে নেমে, ধরে ধরে অনেকটা সময় উইকেটে টিকে ছিলেন দাদা।” সেহওয়াগ আরও লিখেছেন, “ওই দিনই আমি ড্রেসিং রুমে আলোচনা করেছিলাম, এই চাপ যিনি নিতে পারেন, তিনি নিশ্চয়ই একদিন বোর্ড সভাপতি হবেন। আমার সঙ্গে অনেকেই একমত হয়েছিলেন।”

সৌরভ বোর্ড সভাপতি হওয়ার পর সেহওয়াগের গলায় ঝড়ে পড়েছে ভবিষ্যদ্বাণী মিলিয়ে দেওয়ার আনন্দ। একইসঙ্গে আরও একটি ভবিষ্যদ্বাণী করে বসলেন তিনি। লিখলেন, “দাদা একদিন ঠিক বাংলার মুখ্যমন্ত্রী হবেন।”

সেহওয়াগকে ওপেনিং অর্ডারে তুলে আনতে সৌরভের ভূমিকা ছিল সবচেয়ে বেশি। অনেকে বলেন, প্রাথমিক ভাবে এ নিয়ে নাকি তৎকালীন কোচ জন রাইটের সঙ্গেও মতানৈক্য হয়েছিল দাদার। কিন্তু সৌরভের প্রেডিকশন মিলিয়ে দিয়ে শচীনের সঙ্গে ওপেনিং-এ দুরন্ত খেলতে শুরু করেন সেহওয়াগ। সে দিন দাদার অনুমান মিলিয়ে দিয়েছিলেন। আজ সেহওয়াগের অনুমান মিলে গেল।

বোর্ড সভাপতি নির্বাচনেও নাটক দেখেছে ভারতীয় ক্রিকেট। কার্যত ১৩ অক্টোবর মাঝরাতে বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছিল। ভূমিকা নিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এই ঘটনার পর অনেকেই প্রশ্ন তুলে বলেছিলেন, তাহলে কি ২১-এর ভোটে বাংলায় বিজেপির মুখ দাদা? তাই কি অমিত শাহ এই কৌশল নিলেন? এসবে অবশ্য দু’জনেই জল ঢেলে দিয়েছেন। দাদা বলেছেন, “আমি রাজনীতির লোক নই।” অমিত শাহ বলেছেন, “রাজনীতি নিয়ে কোনও কথাই হয়নি।” কিন্তু সেহওয়াগের দ্বিতীয় ভবিষ্যদ্বাণী মিলতে হলে রাজনীতির ২২গজে নামতেই হবে বেহালার বাঙালিকে।

পড়ুন ‘দ্য ওয়াল’ পুজো ম্যাগাজিন ২০১৯–এ প্রকাশিত গল্প

Comments are closed.