বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১৯

নিখোঁজ ছাত্রী উদ্ধার হওয়ার পরেই ধর্ষণের অভিযোগ আনলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বিরুদ্ধে

দ্য ওয়াল ব্যুরো : উত্তরপ্রদেশের শাহজাহানপুর থেকে নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিলেন আইনের এক ছাত্রী। এক সপ্তাহ বাদে রাজস্থান থেকে তাঁকে উদ্ধার করা হয়। তার পরেই তিনি পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছেন, বিজেপি নেতা তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী চিন্ময়ানন্দ তাঁকে ধর্ষণ করেছেন। এক বছর ধরে ওই বিজেপি নেতা অত্যাচার করেছেন তাঁর ওপরে।

চিন্ময়ানন্দ উত্তরপ্রদেশে অত্যন্ত ক্ষমতাশালী রাজনীতিক। শাহজাহানপুরে তাঁর আশ্রম আছে। তিনি ওই শহরে পাঁচটি কলেজ চালান। হরিদ্বার ও হৃষীকেশেও তাঁর আশ্রম আছে। তিনি বহু কোটি টাকার মালিক বলে শোনা যায়। যদিও তাঁর সম্পত্তির পরিমাণ ঠিক কত, তা নির্দিষ্ট করে কখনও জানা যায়নি। চিন্ময়ানন্দ তরুণীর অভিযোগ এককথায় উড়িয়ে দিয়েছেন।

যে তরুণী তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছেন, তাঁর বয়স ২৩ বছর। তিনি ৭২ বছর বয়সী চিন্ময়ানন্দের পরিচালিত আইন কলেজের ছাত্রী ছিলেন। তাঁর ভাইও সেখানে পড়াশোনা করেন। অভিযোগকারিণী দিল্লি পুলিশের কাছে চিন্ময়ানন্দের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। তিনি জানান, উত্তরপ্রদেশ পুলিশ তাঁর অভিযোগ নিতে অস্বীকার করেছে। তাঁর কথায়, স্বামী চিন্ময়ানন্দ আমাকে ধর্ষণ করেছেন। এক বছর ধরে শারীরিক নিগ্রহও করেছেন। আমি দিল্লির লোদী রোড থানায় অভিযোগ করেছি। সেই অভিযোগ শাহজাহানপুর থানায় ফরোয়ার্ড করে দেওয়া হয়েছে। শাহজাহানপুর থানা আমার অভিযোগ নিতে চায়নি।

সুপ্রিম কোর্ট রুদ্ধদ্বার কক্ষে তরুণীর অভিযোগ শুনেছে। এবিষয়ে তদন্তের জন্য শীর্ষ আদালতের নির্দেশে গঠিত হয়েছে স্পেশাল ইনভেস্টিগেটিং টিম। তরুণী জানান, রবিবার তদন্তকারী দল আমাকে ১১ ঘণ্টা ধরে প্রশ্ন করেছে। আমি তাদের সব বলেছি। কিন্তু তারা এখনও চিন্ময়ানন্দকে গ্রেফতার করেনি।

অভিযোগকারিণীকে ৩০ অগস্ট রাজস্থান থেকে উদ্ধার করা হয়। তাঁর এক সপ্তাহ আগে তিনি ফেসবুকে লেখেন, সন্ত সমাজের এক বড় নেতা অনেক মেয়ের জীবন নষ্ট করেছেন। তিনি আমাকে খুন করার হুমকি দিচ্ছেন। তরুণী উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে সাহায্যের জন্য আবেদন জানান।

Comments are closed.