সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৬

ভারত-পাকিস্তান আলোচনায় বসে কাশ্মীর নিয়ে বিবাদ মিটিয়ে নিক, আহ্বান রাষ্ট্রসঙ্ঘের মহাসচিবের

দ্য ওয়াল ব্যুরো : কাশ্মীরকে কেন্দ্র করে যেভাবে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি পেয়েছে তাতে উদ্বিগ্ন রাষ্ট্রপুঞ্জের মহাসচিব আন্তোনিও গুয়াত্রেস। কিছুদিন আগে ফ্রান্সে জি-৭ শীর্ষ বৈঠকের এক ফাঁকে গুয়াত্রেস প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে কথা বলেন। পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশির সঙ্গেও তাঁর কথা হয়েছে। মঙ্গলবার মহাসচিবের মুখপাত্র একথা জানিয়েছেন।

সোমবার গুয়াত্রেস রাষ্ট্রপুঞ্জে পাকিস্তানের প্রতিনিধি মালিহা লোদীর সঙ্গেও কথা বলেন। মোদী, কুরেশি ও লোদী, সকলকেই মহাসচিব বলেছেন, কাশ্মীর নিয়ে যেভাবে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে, তাতে তিনি উদ্বিগ্ন। আলোচনার মাধ্যমেই দুই দেশের বিতর্ক মিটিয়ে নেওয়া উচিত।

সেপ্টেম্বরের শেষেই রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ অধিবেশন বসছে। সেখানে মোদী এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান উভয়েই উপস্থিত থাকবেন। মহাসচিবের মুখপাত্রকে জিজ্ঞাসা করা হয়, গুয়াত্রেস কি ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে মধ্যস্থতা করবেন? মুখপাত্র বলেন, আপনারা জানেন, এ ব্যাপারে আমরা সবসময় একই অবস্থান নিয়ে চলছি।

গুয়াত্রেস আগেই বলেছেন, ভারত ও পাকিস্তান, দুই দেশ যদি চায়, তাহলে তিনি মধ্যস্থতা করতে তৈরি। ভারত অবশ্য আগেই জানিয়ে দিয়েছে, কাশ্মীর তার অভ্যন্তরীণ বিষয়। এখানে তৃতীয় পক্ষের মধ্যস্থতার প্রশ্নই ওঠে না।

গুয়াত্রেসের মুখপাত্র বলেছেন, কাশ্মীর নিয়ে উত্তেজনা কমানোর সময় মানবাধিকারকে পূর্ণ সম্মান দিতে হবে।

গত ৫ অগস্ট ভারত সরকার সংবিধানের ৩৭০ ধারা লোপ করে। তার আগে থেকেই কাশ্মীরে কয়েক হাজার আধা সেনা পাঠানো হয়। পুরো জম্মু-কাশ্মীরকে মুড়ে ফেলা হয় নিরাপত্তার চাদরে। ভারতের তরফে আন্তর্জাতিক মহলকে জানিয়ে দেওয়া হয়, সংবিধানে কোনও ধারা থাকবে কি থাকবে না তা আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়। অন্যদিকে পাকিস্তান জানায়, কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা রদ করার বিরুদ্ধে তারা আন্তর্জাতিক জনমত গড়ে তুলবে।

Comments are closed.