রবিবার, ডিসেম্বর ৮
TheWall
TheWall

দেশে ফিরে যাও, ব্রিটেনে নির্দেশ ভারতীয় ছাত্রীকে, আন্দোলনে কেম্ব্রিজের পড়ুয়ারা

দ্য ওয়াল ব্যুরো : অভিযোগ, বিনা অনুমতিতে দীর্ঘদিন দেশে গিয়ে ছুটি কাটিয়েছেন এক কেম্ব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ভারতীয় গবেষক। শৃঙ্খলা ভঙ্গের অপরাধে তাঁকে আর ব্রিটেনে থাকতে দিতে রাজি নয় সেদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। সেই গবেষক অবশ্য বলেছেন, কেন তাঁকে নির্ধারিত সময়ের বেশি স্বদেশে কাটাতে হয়েছিল, তার কারণ দেখিয়ে উপযুক্ত তথ্যপ্রমাণ দাখিল করেছেন। তাঁর সমর্থনে আন্দোলনে নেমেছেন কেম্ব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা।

অভিযুক্ত গবেষকের নাম আসিয়া ইসলাম। ৩১ বছর বয়স্ক ওই মহিলা এবছরই কেম্ব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউহ্যাম কলেজ থেকে পিএইচডি করেছেন। তার পরে তিন বছরের জন্য জুনিয়র রিসার্চ ফেলোশিপ পেয়েছেন। তিনি যে বিষয়টি নিয়ে গবেষণা করছেন, তা হল, ‘জেন্ডার, ক্লাস অ্যান্ড লেবার ইন দি নিউ ইকনমি অব আরবান ইন্ডিয়া’। ফিল্ড ওয়ার্ক করার জন্য তিনি দিল্লিতে এসেছিলেন। পরে ব্রিটেনে ফের কিছুদিন থাকার জন্য আবেদন করেন। এই ধরনের আবেদনকে বলা হয় ‘ইনডেফিনাইট লিভ টু রিমেন’।

আসিয়ার কথায়, “ব্রিটেনের স্বরাষ্ট্র দফতর আমার আবেদন নাকচ করে দিয়েছে। ব্রিটেনের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের হয়ে রিসার্চ করতে আমি বাইরে গিয়েছিলাম। এইভাবে আবেদন নাকচ হওয়া দুঃখজনক।” একইসঙ্গে তিনি জানান, ব্রিটিশ সরকারকে আমি কয়েকটি চিঠি দিয়েছিলাম। তাতে লিখেছিলাম, ফিল্ড ওয়ার্কের জন্য আমার আরও কিছুদিন বাইরে থাকা জরুরি। সুতরাং আমি ছুটিতে আছি ভাবা ঠিক নয়।

আসিয়ার আবেদন নাকচ হয়ে যাওয়ায় অসন্তুষ্ট হয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ও ছাত্রছাত্রীরা। তাঁদের মধ্যে ৯০০ জন চিঠি দিয়ে সরকারকে বলেছেন, আসিয়া হলেন একজন প্রথম সারির গবেষক। তিনি ফিল্ড ওয়ার্কে বড় সাফল্য লাভ করেছেন। কিন্তু ফিল্ড ওয়ার্কের জন্যই তাঁকে এখন মুশকিলে পড়তে হচ্ছে।

Comments are closed.