বৃহস্পতিবার, জুন ২০

জলপাইগুড়িতে পরপর এটিএম লুঠের পিছনে আন্তর্জাতিক চক্র, ধৃত মূল মাথারা

দ্য ওয়াল ব্যুরো, জলপাইগুড়ি : ভাঙা এটিএম দেখতে অভ্যস্ত হয়ে উঠছিলেন জলপাইগুড়ির মানুষ। গত তিন মাস ধরে শহরে একের পর এক এটিএম লুঠের ঘটনা মানুষের মনে ত্রাসের সৃষ্টি করেছিলো। অবশেষে সেই ত্রাস থেকে মুক্তি। শনিবার রাতেই এটিএম লুঠ চক্রের মাথাদের গ্রেফতার করলো পুলিশ। জানা গেল  এই এটিএম লুঠের পিছনে রয়েছে আন্তর্জাতিক চক্র। সেই চক্রেরই দুই মাথা প্রবীণ বর্মন ও মজরুল হককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পাশপাশি, ধরা পড়েছে  মজরুলদের সাহায্যকারী কয়েকজন স্থানীয়।

শনিবার রাতে জলপাইগুড়ির শান্তিপাড়া এলাকায় এটিএম লুঠ করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়ে দু’ই মাথা। তাদের জেরা করে ২-৩ জন স্থানীয়কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। জানা যাচ্ছে, স্থানীয় কিছু মানুষ স্রেফ টাকার লোভে এটিএম লুঠে সাহায্য করত। এদের কাজ ছিল শহরের এটিএমগুলির সঠিক তথ্য চক্রের মাথাদের দেওয়া। সেই অনুযায়ী ছক কষে খুব সহজেই জলপাইগুড়ি ও আশেপাশের এলাকায় এটিএম লুঠ করতো প্রবীণ-মজরুল ও তাদের দলবল।

ঘটনার সূত্রপাত ২০১৮-র অক্টোবরে। জলপাইগুড়ির ৭৩ মোড়ে বড়সড় এটিএম ডাকাতি পুলিশকে হতবাক করে। গভীর রাতে এটিএমের ভল্ট ভেঙে ১৬ লক্ষ টাকা চুরি করে চম্পট দেয় দুষ্কৃতীরা। ঘটনার কয়েকদিনের মাথায় রাংধামালি এলাকায় ফের এটিএম লুঠের ছক কষে দুষ্কৃতীরা। কিন্তু গ্যাস কাটার থেকে আগুন লেগে যাওয়ায় ঘটনাস্থল থেকে চম্পট দেয় তারা। এরপরই তৎপর হয় পুলিশ। সিআইডির সাহায্য নিয়ে শুরু হয় তদন্ত। জানা যায়, এটিএম লুঠের পিছনে রয়েছে আন্তর্জাতিক চক্রের হাত। যাদের একটি শাখা বিহারের গুরগাঁও এলাকা খেকে সমস্ত কাজ পরিচালনা করে। তদন্তে নেমে আরও জানা যায়, জলপাইগুড়িতে  থেকে যারা  এটিএম লুঠ করছে তাদের মধ্যেই একজন বিহারের বাসিন্দা, যে সরাসরি মূল চক্রের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে গোটা কাজ পরিচালনা করছে।

কয়েকদিন আগে জলপাইগুড়ির কালিয়াগঞ্জ এলাকায় এটিএমের ভল্ট ভেঙে প্রায় দেড় লক্ষ টাকা চুরি করা হয়। এরপর জলপাইগুড়ি থেকে কিছু দূরে প্রত্যন্ত এলাকায় এটিএম লুঠ করে এই একই চক্র। তদন্তে নেমে প্রথমে  হিমশিম খায় পুলিশ। পরে, সিআইডির তৎপরতায় তদন্তে গতি আসে। মজরুলের  উপর নজর রাখা শুরু করে পুলিশ। এই চক্রের আরও অনেক সদস্য জলপাইগুড়িতে ছড়িয়ে রয়েছে বলে পুলিশের অনুমান।তাদের খোঁজে চলছে তল্লাশি। ধৃত ২ জনের ১৪ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

ব্রিগেড থেকে চেন্নাই ফিরেই স্ট্যালিন বললেন, রাহুলই পরের প্রধানমন্ত্রী

Comments are closed.