সোমবার, অক্টোবর ১৪

তৃতীয় লিঙ্গের মানুষেরাও খেললেন সিঁদুর! সংস্কারের প্রাচীন আগল ভেঙে নতুন আলো বর্ধমানে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আলো ক্রমে আসিতেছে। দীর্ঘদিনের সামাজিক আগল ভেঙে গেল বর্ধমানে।

বিজয়া দশমীতে তৃতীয় লিঙ্গের বা রূপান্তকামী মানুষদের সিঁদুর খেলা কলকাতা শহরে হালে চালু হলেও, বর্ধমান জেলার কোনও সামাজিক অনুষ্ঠানে ট্রান্সজেন্ডার মানুষদের অংশগ্রহণ এত দিন পর্যন্ত ছিল স্বপ্নের অতীত। সিঁদুর খেলা তো দূরের কথা। সেই সামাজিক সংস্কারের বন্ধ দুয়ার ভেঙে তছনছ হয়ে গেল প্রাচীন শহরে।

একাদশীর সকালে এই প্রথম বর্ধমান শহরের কাঁটাপুকুর সর্বজনীন পূজা মণ্ডপে সিঁদুর খেললেন ট্রান্সজেন্ডার মানুষেরা। এই সাহসী উদ্যোগের মূল কাণ্ডারী বর্ধমান ফুডিজ ক্লাব।

কয়েক বছর আগে কলকাতায় এমন ধারা শুরু হলেও, বর্ধমানের মতো শহরের জন্য এটা দুঃসাহসিক ব্যাপারই বলা যায়। কারণ অনেকেই বলছেন, প্রাচীন রাজ শহর বলে পরিচিত বর্ধমান বহু সংস্কৃতির প্রাঙ্গণ হয়ে রয়েছে বহু বছর ধরে। বহু আচার-অনুষ্ঠান এখনও অনেক পুরনো পদ্ধতি মেনে পালন করা হয় সেখানে। তাই বর্ধমান শহরে এই প্রথা ভাঙার খেলা বড়ই অভিনব।

বর্ধমান ফুডিজ ক্লাবের তরফে জানানো হয়েছে, তারা শহরের অনেক পুজো কমিটিকে প্রস্তাব দিলেও, শেষমেষ কেবল কাঁটাপুকুর রাজি হয়। সেই মতো বেশ কয়েক জন ট্রান্সজেন্ডার এই দিন মণ্ডপে এসে সিঁদুর খেলায় মেতে ওঠেন। তাঁদের সঙ্গেই ছিলেন দু’জন বিধবা মহিলাও।

বর্ধমান ফুডিজ ক্লাব নামের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনটি সাধারণত উদ্বৃত্ত খাবার পৌঁছে দেয় শহরের নানা প্রান্তের ক্ষুধার্ত মানুষকে। তার বাইরেও, নানা সামাজিক কাজে এই সংগঠনের উদ্যোগ নজর কাড়ে বারবার। কিছু দিন আগেই তারা অ্যাসিড আক্রান্ত মেয়েদের নিয়ে একটি অন্যরকম অনুষ্ঠান করে এই মফস্বল শহরে। এর পরে, পূর্ব বর্ধমানের জেলা সদরে তারা আরও একটি সাহসি পদক্ষেপ নিয়ে আধুনিকতার পথে এক ধাপ এগিয়ে দিল বর্ধমানকে।

Comments are closed.