মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৫

আগে সাধারণ না আগে ভিআইপি, মমতার ট্রাফিক কন্ট্রোলের পরের দিনেই উঠল প্রশ্ন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ২০১১ সালে ক্ষমতায় আসার পরেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দেন, সাধারণ মানুষের যাতায়াতে বিঘ্ন ঘটানোর পক্ষাপাতী নন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর যাতায়াতের সময়ে রাস্তায় অন্য গাড়ি দাঁড় করিয়ে রাখার বিরোধিতা করেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী। বরবারই সাধারণের কথা ভাবা মমতা রাস্তায় অনেক নজির দেখিয়েছেন।

কখনও রাস্তায় ঝড়-বৃষ্টিতে আটকে যাওয়া দম্পতিকে গাড়িতে তুলে নিয়েছেন, কখনও গাড়ি থেকে নেমে কর্তব্যরত ট্রাফিক কনস্টেবলের কুশল জানতে চেয়েছেন। সেই চেনা মমতাকে দেখা গিয়েছে বৃহস্পতিবারও। কলকাতা বিমানবন্দর থেকে শহরে ঢোকার পথে তেঘরিয়ায় ভিআইপি রোডের উপরে সারি সারি বাস দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে নিজের গাড়ি থেকে নেমে পড়েন মমতা। জানতে চান কেন এত গাড়ি দাঁড়িয়ে। যখন তিনি জানতে পারেন যে তাঁর গাড়ি যাওয়ার রাস্তা করে দিতেই এত গাড়ি দাঁড় করানো হয়েছে তখন রীতিমতো ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

এর পরে নিজে দাঁড়িয়ে ট্রাফিক কন্ট্রোল করেন মমতা। ট্র্যাফিক স্বাভাবিক হওয়ার পরই তিনি সেখান থেকে যান।

মুখ্যমন্ত্রীর মতো ভিআইপির গাড়ি যাতায়াতের সময়ে এটা অবশ্য নিয়মের মধ্যেই পড়ে। প্রোটোকল অনুযায়ী ভিআইপি-দের ফ্রি প্যাসেজ করে দিতে হয়। সেজন্য যান নিয়ন্ত্রণ করে ট্র্যাফিক পুলিশ। আর সেই যান নিয়ন্ত্রণ প্রতিদিনই হয় কলকাতার রাস্তায়। বৃহস্পতিবার নিজে সেই নিয়ম ভাঙলেও শুক্রবার ফের একই ভাবে মুখ্যমন্ত্রীর নবান্ন যাওয়ার সময়ে ট্রাফিক পুলিশ গাড়ি আটকায়।

ওই পথের যাত্রীরা জানেন মুখ্যমন্ত্রীর নবান্ন যাওয়া আসার সময়ে কলকাতা ও হাওড়া দুই শহরেরই দ্বিতীয় হুগলি সেতু যাওয়ার রাস্তা বন্ধ থাকে বেশ কিছুক্ষণের জন্য। ওই এলাকায় ১০ মিনিট পর্যন্ত যান চলাচল বন্ধ থাকে। শুক্রবারও সেই নিয়মের ব্যতিক্রম হয়নি। এদিন দুপুরে রাজভবন থেকে মুখ্যমন্ত্রীর নবান্নে যাওয়ার সময়ে বন্ধ হয়ে যায় ওই পথের যান চলাচল। এমনকী যে পথে মুখ্যমন্ত্রী যাবেন তার উল্টো লেনও বন্ধ থাকে।

আর তাতেই উঠেছে প্রশ্ন। ওই পথে আটকে যাওয়া যাত্রীদের প্রশ্ন, গতকালই যেখানে মুখ্যমন্ত্রী রাস্তায় নেমে ট্রাফিক কন্ট্রোল করে আগে ভিআইপি নয়, আগে সাধারণ বলে বার্তা দিলেন সেখানে ২৪ ঘণ্টা কাটার আগেই তো উল্টো দৃশ্য। এজন্য অবশ্য মুখ্যমন্ত্রীকে দায়ী করছেন না যাত্রীরা। তাঁদের বক্তব্য, মুখ্যমন্ত্রী কি আদৌ জানেন যে, তাঁর ট্রাফিক পুলিশ তাঁকে ফ্রি-প্যাসেজ দিতে রোজ শহরে সাধারণকে দাঁড় করিয়ে রাখে রাস্তায় রাস্তায়?

Comments are closed.