বুধবার, নভেম্বর ২০
TheWall
TheWall

তৃণমূল ভবনে মমতার সঙ্গে পিকে, দলের প্রচারে ৩ বিষয়ে জোর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এনআরসি ইস্যুতে আরও প্রচার চাই। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশাপাশি তৃণমূল কংগ্রেসের প্রচার পরামর্শদাতা প্রশান্ত কিশোর একই বার্তা দিলেন দলের নেতাদের। সূত্রের খবর, রুদ্ধদ্বার ওই বৈঠকে বুথ পর্যায়ে মানুষের মগজে এনআরসি ইস্যু ঢুকিয়ে দেওয়ার কথাও এদিন বলা হয়েছে দলের নেতাদের। সেই সঙ্গে নির্দেশ জেলায় জেলায় ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচিতে আরও জোর দিতে হবে। আরও বাড়াতে হবে কর্মসূচি। জানা গিয়েছে, এদিন তিন নির্দেশই দিয়েছেন প্রশান্ত কিশোর। আর সেই নির্দেশে সিলমোহর দিয়েছেন মমতা।

এদিন দু’দফায় বৈঠক বসে তপসিয়ার তৃণমূল ভবনে। প্রথম বৈঠকটি হয় দলের সব জেলা থেকে আসা তপশিলি জাতি উপজাতি বিধায়কদের নিয়ে। সব জেলারই তপশিলি সম্প্রদায়ের জনপ্রতিনিধিরা সেখানে হাজির হন। দলের সব বিধায়কদের নিয়ে বৈঠকের আগে ওই বৈঠকটি হয়। সেখানেই মমতা বন্দ্যপাধ্যায় ও প্রশান্ত কিশোর তিনটি বিষয়ে জোর দিতে নির্দেশ দিয়েছেন বলে দাবি সূত্রের।

প্রথম বিষয়টি ছিল এনআরসি। প্রথম থেকেই এই ইস্যুতে সরব তৃণমূল কংগ্রেস। এই রাজ্যে এনআরসি কার্যকর হতে দেওয়া হবে না বলে রীতিমতো চ্যালেঞ্জের সুরে কেন্দ্রকে একাধিকবার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন দলনেত্রী। দলের কর্মীদের এনিয়ে সাধারণের কাছে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আগেই। এবার সেই নির্দেশ ফের দেওয়া হল। সূত্রের খবর, বৈঠকে প্রশান্ত কিশোর বলেন, প্রতিটি মানুষের মগজে ঢুকিয়ে দিতে হবে এনআরসি রাজ্যে কার্যকর হলে কী ক্ষতি হতে পারে। এর জন্য বুথে বুথে গিয়ে সাধারণকে বোঝানোর নির্দেশও দিয়েছেন দিদি এবং পিকে।

আলোচনায় দ্বিতীয় বিষয়টি ছিল তপশিলি জাতি উপজাতি ভুক্ত মানুষের আরও বেশি করে কাছে টানার নির্দেশ। উল্লেখ্য, গত লোকসভা নির্বাচনে এই সম্প্রদায়ের মানুষদের থেকে সেভাবে সাড়া পায়নি তৃণমূল কংগ্রেস। পঞ্চায়েত থেকে লোকসভা নির্বাচন সবেতেই বিজেপির পাশে তপশিলি মানুষদের থাকতে দেখা গিয়েছে বলে পরিসংখ্যানেই স্পষ্ট।

এদিনের বৈঠকে হাজির তৃণমূল কংগ্রেসের এক নেতার দাবি, যে সব এলাকায় তপশিলি সম্প্রদায়ের মানুষ বেশি সেখানে প্রচারে জোর দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মমতা ও প্রশান্ত কিশোর। সেই প্রচারে রাজ্য সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পকে হাতিয়ার করতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে জানা হয়েছে, ওই সম্প্রদায়ভূক্ত মানুষের কী কী সমস্যা রয়েছে তা দলীয় নেতৃত্ব এবং প্রশান্ত কিশোরের টিমকে জানাতে হবে।

এদিনের নির্দেশের মধ্যে তৃতীয় যে কাজে জোর দিতে বলা হয়েছে তা হল ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচি। রাজনৈতিক পরামর্শদাতা প্রশান্ত কিশোরের নেতৃত্বে ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচি ইতিমধ্যেই সাফল্য পেয়েছে বলে দাবি করে জানানো হয়েছে এই কর্মসূচির মাধ্যমে দলকে আরও ডিভিডেন্ড তুলতে হবে। বুথ পর্যায়ে এই কর্মসূচি আরও বাড়াতে হবে।

আরও পড়ুন

তৃণমূল ভবনে ফোন নিয়ে ঢুকতে বাধা, ক্ষোভে ফেটে পড়লেন কল্যাণ

Comments are closed.