সোমবার, অক্টোবর ১৪

সব্যসাচীকে সাসেপন্ড করা এখন সময়ের অপেক্ষা, সল্টলেকের নতুন মেয়র নির্বাচন শিগগির

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিধাননগরের মেয়র সব্যসাচী দত্ত যে ‘দল বিরোধী’ কাজ করেছেন সে ব্যাপারে এক মত সল্টলেকের ৩৬ জন কাউন্সিলরই। রবিবাসরীয় দুপুরে তৃণমূল ভবনে দিদি-র পাঠানো পর্যবেক্ষক তথা পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের সামনে তাঁরা সে কথা যে শুধু মুখে বললেন তা নয়, সব্যসাচীর বিরুদ্ধে সর্বসম্মত প্রস্তাবও নেওয়া হল বৈঠকে। সেই সঙ্গে বলা হল, এ ব্যাপারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা সিদ্ধান্ত নেবেন সেটাই চূড়ান্ত।

অর্থাৎ, আজ রাত বা কালকের মধ্যেই সব্যসাচী দত্তকে দল থেকে সাসপেন্ড করার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করবে দল। সব্যসাচীকে মেয়র পদ থেকে সরানোর সিদ্ধান্তও ঘোষণা করা হবে। তার পর শিগগির নতুন মেয়র নির্বাচন করা হবে বিধাননগরের জন্য।
সব্যসাচীকে যে সরানো হচ্ছে, তা এদিন বিকেলেই ঠারোঠোরে বুঝিয়ে দেয় তৃণমূল। কাউন্সিলরদের বৈঠকের পর ডেপুটি মেয়র তাপস চট্টোপাধ্যায়কে আপাতত কাজ চালাতে বলা হয়। কাল সোমবার মেয়র পরিষদের বৈঠকও ডেকেছেন তাপসবাবু।

তবে এই ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে অবশ্য অনেকে মনে করতে শুরু করেছেন, তাপস চট্টোপাধ্যায়ই বিধাননগরের পরবর্তী মেয়র কিনা। তৃণমূলের শীর্ষ সূত্রে বলা হচ্ছে, না তা নয়। এটা প্রথা মাত্র। মেয়রের প্রতি যে হেতু গরিষ্ঠ সংখ্যক কাউন্সিলর অনাস্থা জানিয়েছেন, তাই ডেপুটি মেয়রকে আপাতত কাজ চালাতে বলা হল।

সূত্রের খবর, ১০ জুলাই বিধাননগর পুরবোর্ডের বৈঠক আগে থেকেই ডাকা ছিল। সব্যসাচী ১৪ তারিখ বিদেশ সফরে যাবেন বলে তিনি পরামর্শ দিয়েছিলেন ১০ তারিখ বৈঠক ডাকার। ওই বৈঠকেই সব্যসাচীর বিরুদ্ধে অনাস্থায় শিলমোহর দেওয়া হবে। তার পর কাউন্সিলরদের বৈঠক ডেকে নতুন মেয়র নির্বাচিত করা হবে।

প্রশ্ন হল, নতুন মেয়র কে হবেন?

তৃণমূলের শীর্ষ সূত্রে বলা হচ্ছে, এ ব্যাপারে দলের মধ্যে দু-তিন জন নেতার সঙ্গে আলোচনা করেছেন দিদি। তবে কার উপরে তিনি আস্থা জানাবেন তা এখনও স্পষ্ট করে তিনি বলেননি। সম্ভবত তাও কাল পরশুর মধ্যে স্পষ্ট হয়ে যাবে।

Comments are closed.