পুলওয়ামা স্মারক বানাতে ঘুরলেন দেশ, মাটি কুড়োলেন শহিদদের বাড়ি বাড়ি থেকে

২০১৯ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় সিআরপিএফ কনভয়ে আত্মঘাতী জঙ্গি হামলার ঘটনায় প্রাণ হারান ৪০ জন সিআরপিএফ জওয়ান।

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ২০১৯ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় সিআরপিএফ কনভয়ে আত্মঘাতী জঙ্গি হামলার ঘটনায় প্রাণ হারান ৪০ জন সিআরপিএফ জওয়ান। আর সেই জওয়ানদের বাড়ির মাটি নিয়ে এসে স্মারক বানাতে চান উমেশ গোপিনাথ যাদব।

এক বছর আগে এই হামলার দায় স্বীকার করেছিল সন্ত্রাসবাদী সংগঠন জৈশ-ই-মহম্মদ। সেনাবাহিনীর কনভয় লক্ষ্য করে চালানো ওই আত্মঘাতী জঙ্গি হামলায় প্রায় ২৫০০ সিআরপিএফ জওয়ানের মধ্যে শহিদ হন ৪০ জন সিআরপিএফ জওয়ান। ভারতে সাম্প্রতিককালের মধ্যে ওই জঙ্গি হামলাকে অন্যতম ভয়াবহ বলে মনে করা হয়। ওই হামলার পর ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে তীব্র চাপানউতোর শুরু হয়। প্রায় যুদ্ধের মতো পরিস্থিতি তৈরি হয় সেই সময়। জঙ্গি ঘাঁটি ভাঙতে ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের বালাকোটে হামলা চালায় ভারতীয় বায়ুসেনা। এখন সেই হামলায় মৃতদের স্মারক বানাতে অভিনব পথ নিলেন উমেশ গোপিনাথ যাদব।

তিনি সেনাবাহিনীর সদস্য নন। তাঁর পরিবারের কেউও সেনাবাহিনীতে নেই। তবু তিনি এখন সেনা পরিবারের সদস্য হয়ে উঠেছেন। সন্তান হারানো পরিবারের আত্মজন হয়ে উঠেছেন। তাই শুক্রবার জম্মু-কাশ্মীরের লেথপোরায় সিআরপিএফ শিবিরে শহিদ স্মরণ অনুষ্ঠানে তাঁকেই বিশেষ অতিথির মর্যাদা দেওয়া হয়।

শহিদ স্মারক বানানোর জন্য এক বছর আগে থেকেই উদ্যোগ নেন তিনি। একটি গাড়ি নিয়ে দেশের প্রায় ৬১ হাজার কিলোমিটার পথ পাড়ি দেন। সংগ্রহ করেন প্রত্যেক শহিদের বাড়ির মাটি। রত্নগর্ভা জমির মাটি দিয়ে ঠিক করেছিলেন ভারতের মানচিত্রের আকারের একটি স্মারক তৈরি করবেন। সেটা শেষ পর্যন্ত করতে না পারায়ে লেথপোরায় পুলওয়ামা হামলার যে স্মারকস্তম্ভ রয়েছে সেখানেই শহিদের বাড়ির মাটি এদিন অর্পণ করলেন তিনি।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.