বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২৫

ভাসান দিতে গিয়ে ভয়াবহ বাইক দুর্ঘটনা! যুবকের গলা ছিঁড়ে ঝুলছে ব্রিজের রেলিংয়ে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সরস্বতী পুজোর ভাসান দিতে যাচ্ছিলেন দল বেঁধে। আচমকা লরির ধাক্কায় চলে গেল এক যুবকের প্রাণ। এমনই ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটে, তার গলা ছিঁড়ে ব্রিজের রেলিংয়ে ঝুলতে দেখা যায়।

পুলিশ জানিয়েছে. সোমবার রাত ১১টা নাগাদ ঘটনাটি ঘটেছে আলিপুর চিড়িয়াখানার কাছে জিরাট ব্রিজের উপর। ঘটনার পরে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। আতঙ্কিত হয়ে পড়েন সকলে। পরে বিশাল পুলিশ বাহিনী পৌঁছে পরিস্থিতি সামাল দেন। দেহটি উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় এসএসকেএম হাসপাতালে। এমন ভাবেই গলা থেকে মাথা উপড়ে গিয়েছে, দেখে শিউরে ওঠে সবাই।

পুলিশ সূত্রের খবর, চেতলার শঙ্কর বোস রোডের বাসিন্দা ২৭ বছরের সম্রাট চক্রবর্তী সোমবার রাতে বন্ধুদের সঙ্গে সরস্বতী পুজোর ভাসান দিতে যাচ্ছিলেন। সম্রাটের এক বন্ধু জানায়, চেতলায় তাঁরা পাড়ার মধ্যে সরস্বতী পুজো করেছিলেন। পুজো মেটার পরে সোমবার রাত ১১টা নাগাদ ঠাকুর বিসর্জন দিতে যাচ্ছিলেন গঙ্গায়।

একটা ছোটো টেম্পোতে ঠাকুর ছিল। আর সম্রাট বাইক চালিয়ে টেম্পোর আগে আগে যাচ্ছিলেন। বাইকের পিছনে তাঁর আরও এক বন্ধু বসেছিলেন। আলিপুর জিরাট ব্রিজের উপর দিয়ে যাওয়ার সময়ে আচমকা উল্টো দিক থেকে আসা একটি লরি সজোরে ধাক্কা মারে বাইকটিকে। সম্রাট ছিটকে গিয়ে পড়ে ব্রিজের রেলিংয়ে।

এতই জোরে রেলিংয়ের সঙ্গে ধাক্কা খান তিনি, সঙ্গে সঙ্গে তাঁর গলা কেটে গিয়ে ঝুলে যায় রেলিংয়ে। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তাঁর। বাইকটির পেছনে বসা বন্ধুও জখম হন।

পারিবারিক সূত্রের খবর, বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান সম্রাট একটি বেসরকারি সংস্থায় ডেটা এনট্রির কাজ করত।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, ঘটনাস্থলে কোনও পুলিশ ছিল না। এমনকী দুর্ঘটনার পরে এক ঘণ্টা কেটে গেলেও পুলিশের দেখা মেলেনি। এর পরেই ক্ষিপ্ত হয়ে পড়েন এলাকার বাসিন্দারা। রাস্তায় ও ভাবে যুবকের দেহ ঝুলতে দেখে পথচলতি মানুষ ও স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে ভয়ঙ্কর আতঙ্ক ছড়ায়।

সম্রাটের বাইক।

পরে ঘটনাস্থলে বিশাল পুলিশ বাহিনী এসে পরিস্থিতি সামাল দেয়। দেহটি নিয়ে যাওয়া হয় এসএসকেএম হাসপাতালে। তবে কোনও লরি ধাক্কা মেরেছে নাকি নিয়ন্ত্রণ হারিয়েই বাইকটি রেলিংয়ে ধাক্কা মারে, সে বিষয়ে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। সম্রাটের মাথায় হেলমেট ছিল না বলে জানা গিয়েছে।

Shares

Comments are closed.