ও মা! আমার তো তাহলে সত্তর! লাইফে এত বেশি কিছু করেছি!

১,০৭৯

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এ সময়ে টলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও ব্যক্তিত্ব স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। নতুন প্রজন্মের ছেলেমেয়েদের কাছে তো রীতিমতো হার্টথ্রব তিনি। শুধু যে অভিনয় করেই মাতাচ্ছেন সকলকে তা নয়, তাঁর কথাবার্তা, ভাবনাচিন্তা, প্রতিবাদী কণ্ঠ প্রতিদিনই কাউকে না কাউকে উদ্বুদ্ধ করছেই।

সম্প্রতি টুইটারে স্বস্তিকার একটি পোস্ট নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। আসলে এটি একটি খেলা। বিভিন্ন বিভাগে নিজের অভিজ্ঞতা সংখ্যায় প্রকাশ করে, তার পর তার যোগ করে যেটা হবে সেটাই নাকি ব্যবহারকারীর স্কোর। আর সেই স্কোর যদি ৫০-এর কম হয়, তাহলে জীবনে অনেক কিছুই করা হয়নি এখনও। এটাই বলতে চাওয়া হয়েছে খেলাটিতে।

The hot season looks cool on Swastika Mukherjee. Here's why - Telegraph  India

খেলাটায় বিভাগগুলো ছিল: সেক্স কতবার করেছেন, কতবার সিগারেট খাওয়া, মাতাল হওয়া, বিপরীত ও সমলিঙ্গের কাউকে চুমু খেয়েছেন কিনা, কলেজে সাসপেন্ড কতবার হয়েছেন ইত্যাদি। সাধারণত অভিনেতা অভিনেত্রীরা তাদের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা ও জীবন সকলের সামনে তুলে ধরতে স্বচ্ছন্দ হন না প্রায়ই। কিন্তু স্বস্তিকা এবারও প্রমাণ করলেন, তিনি সবার চেয়ে আলাদা। সব বিভাগ মিলিয়ে তাঁর যোগফলের অঙ্ক দাঁড়িয়েছে ৭০!

একজন অভিনেত্রী এই বিষয়গুলো অকপটে স্বীকার করবেন এমনটা অনেকেই ভাবতে পারেননি। এ যেন এক নতুন স্বস্তিকা! যিনি প্রায় প্রকাশ্যেই বলছেন, জীবনে কী কী করে ফেলেছেন তিনি। সেক্স, চুমু, মন ভাঙা– কোনও কিছুই বাদ নেই।

এই গেম শেয়ার করে স্বস্তিকা লিখেছেন, “আমার তো ৭০! মানে আমি জীবনে অনেক বেশি বেঁচে ফেলেছি!” আসলে তিনি নিজেই স্বীকার করলেন, যে তিনি জীবনে মজা করে, সুন্দর করে বাঁচছেন। এসব নিয়ে তাঁর কোনও ছুঁৎমার্গ নেই।

স্বস্তিকা ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুক, টুইটারে সারাক্ষণই ভীষণ অ্যাক্টিভ। ছবির শুটিং স্পট থেকে শুরু করে বাড়ির অন্দরমহলের ছবি, আবার বন্ধুদের আড্ডা থেকে মেয়ের সঙ্গে নিভৃতে সময় কাটানোর খবর সবটাই তিনি শেয়ার করেন। প্রথম সারির অভিনেত্রী মানেই যে সবসময় সেজেগুজে নিজের ইমেজ ধরে রাখতে হবে এমনটা তিনি মোটেও মনে করেন না। উল্টে একজন সাধারণ একা মেয়েকে প্রতিদিনের জীবনে যেসব প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয় তার উত্তরও নিজে দিয়ে দেন। স্বাধীন ভাবে, ইচ্ছেমতো চলাতেই তিনি আনন্দ খুঁজে পান সেটা বারবার প্রমাণ করেন তিনি।

এই রকম খোলামেলা ও স্বাধীনচেতা চিন্তার প্রকাশ করার অভ্যেস স্বস্তিকা বরাবরই বজায় রেখেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More