ঋদ্ধিমানের চওড়া ব্যাট, রশিদের স্পিনে ধরাশায়ী দিল্লি

৪৮৭

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

 

দ্য ওয়াল ব্যুরো : চলতি আইপিএল যখন মধ্যবর্তী পর্যায়ে, সেইসময় একটি বিষয় বিশেষভাবে চোখ টানছে। হেভিওয়েট দলগুলি হারছে পয়েন্ট তালিকায় পিছিয়ে থাকা দলের কাছে। এবার আসরে দিল্লি ক্যাপিটালস ভাল খেলছিল, তারা যেভাবে মঙ্গলবার দুবাইতে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের কাছে হারল, তাতে প্লে অফের অঙ্ক বেশ জটিল লাগছে!
দিল্লি সবচেয়ে ধারাবাহিক দল হিসেবে শুরু করেছিল চলতি টুর্নামেন্টে। কিন্তু এদিন তারা শুরু থেকেই ভুল করেছে। টসে জিতে বিপক্ষ দলকে ব্যাটিং করতে পাঠানো মানে চাপে নিজেদের অভিযান শুরু করা। যেহেতু টি ২০ ক্রিকেট ব্যাটসম্যান প্রভাবিত ক্রিকেট, সেই কারণে বেশিমাত্রায় চাপে থাকে বোলিং দলই। সেটাই ম্যাচে প্রমাণিত। হায়দরাবাদ দলে কিছু বদল এনে ঝকঝকে পারফরম্যান্স দেখাল। তাদের ২১৯ রানের জবাবে দিল্লি শেষ ১৩১ রানে, হার দিল্লির ৮৮ রানে।
ঋদ্ধিমান সাহাকে খেলানো হচ্ছিল না বলে বিশেষজ্ঞদের একটা অংশ সমালোচনা করছিল হায়দরাবাদ টিম ম্যানেজমেন্টের। যে ক্রিকেটার একটা সময় আইপিএলের ফাইনালের মতো হাইভোল্টেজ ম্যাচে সেঞ্চুরি করতে পারেন, তিনি কেন ম্যাচে সুযোগ পাবেন না, সেই নিয়ে চাপ বাড়ছিল ডেভিড ওয়ার্নারের ওপর। সেই আস্থার মর্যাদা দিলেন বাংলার নামী তারকা।
শিলিগুড়ি শক্তিগড়ের ছেলে বাংলার নামী উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের ৪৫ বলে ৮৭ রান বহু সমালোচনার জবাব দিয়ে দিয়েছে। ঋদ্ধির ব্যাটে ছিল শটের ফুলঝুরি। ১২টি কপিবুক বাউন্ডারি ও দুটি বিশাল ছক্কা মেরেছেন। দলের অধিনায়ক তথা নামী অস্ট্রেলীয় তারকা ব্যাটসম্যান ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে জুটি বেঁধে ঝদ্ধিমান ওপেনিং জুটিতে তুলেছেন ১০৭ রান। ওয়ার্নার করেছেন ৩৪ বলে ৬৬, যার মধ্যে ছিল ৮টি চার ও দুটি ছয়।
তিনে নেমে মনীশ পান্ডেও ভাল খেলেছেন, তাঁর অবদান ৩১ বলে ৪৪ রান। মেরেছেন চারটি বাউন্ডারি ও একটি ছয়। দিল্লির নামী বোলিং লাইনআপকে বড়ই ফ্যাকাসে লেগেছে। নর্টজে, রাবাদা, অশ্বিনরা বেধড়ক মার খেয়েছেন ঋদ্ধি, ওয়ার্নারদের কাছে।
হায়দরাবাদ সবদিক থেকে টেক্কা মেরেছে দিল্লিকে। ব্যাটিংয়ে তো জবাব নেই, বোলিংয়ে রশিদ খান একাই একশো, তাঁর ঝুলিতে রয়েছে সাত রানে তিন উইকেট। এমনকি সন্দীপ শর্মাও বোলিং ওপেন করতে এসে ২৭ রানে দুই উইকেট নিয়ে গিয়েছেন। নাদিম, নটরাজন সবাই নিজেদের সেরা বোলিং করেছেন।
দিল্লি দলের সাধের ব্যাটিং লাইনআপকে এতটা করুণ এই প্রথম মনে হল। ওপেনার আজাঙ্ক রাহানে (২৬) থেকে শুরু করে ঋষভ পন্থ (৩৬) এই দু’জনই সফল, বাকিরা কেউই রান পাননি। কোনও প্রতিরোধ তো দূরের কথা, শেষ চারটি উইকেট পড়েছে মাত্র তিন রানে।
সংক্ষিপ্ত স্কোর : সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ২০ ওভারে ২১৯/২। ঋদ্ধিমান ৮৭, ওয়ার্নার ৬৬, মনীশ ৪৪।
দিল্লি ক্যাপিটালস ১৯ ওভারে ১৩১ অলআউট। ঋষভ ৩৬, রাহানে ২৬। রশিদ ৩/৭।
হায়দরাবাদ জয়ী ৮৮ রানে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More