শনিবার, মার্চ ২৩

ছাত্র সংসদ নির্বাচনের দাবিতে উত্তাল যাদবপুর, বিক্ষোভের জেরে অসুস্থ উপাচার্য

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ছাত্র সংসদ নির্বাচনের দাবিতে ফের উত্তাল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। উপাচার্যকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান পড়ুয়ারা। অভিযোগ, তাঁকে গাড়িতে উঠতে বাধা দিয়ে রীতিমতো ধস্তাধস্তি চলেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে।বিক্ষোভের জেরে অসুস্থ হয়ে পড়েন উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। স্ট্রেচারে করে তাঁকে বাইরে নিয়ে আসা হয়। ভর্তি করা স্থানীয় একটি হাসপাতালে। জানা গিয়েছে, আপাতত স্থিতিশীল রয়েছেন উপাচার্য। 

বিক্ষোভের আঁচ কয়েক দিন ধরেই ঘনাচ্ছিল। নির্বাচিত ছাত্র সংসদ নাকি অরাজনৈতিক ছাত্র কাউন্সিল– এই নিয়ে বিতর্ক যখন তুঙ্গে, তখনই ছাত্র সংসদ নির্বাচনের দাবিতে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ দেখালেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা।

বস্তুত, রাজ্য সরকারি বিজ্ঞপ্তি জারি করলেও, এ রাজ্যে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে ছাত্র কাউন্সিল তৈরির প্রক্রিয়া এখনও থমকে। এ দিকে গত দুই বছর ধরে ছাত্র সংসদের নির্বাচনও হচ্ছে না। লোকসভা ভোটের মুখে প্রশাসনিক কারণে এখন ছাত্র সংসদ নির্বাচন করা যাবে না জানিয়ে দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

এই পরিস্থিতিতেও স্রেফ পড়ুয়াদের দাবিতে গুরুত্ব দিয়েই বিশেষ বৈঠকে বসেছিল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের এগজিকিউটিভ কাউন্সিল। বৈঠকের মূল আলোচ্যই ছিল, ছাত্র সংসদের নির্বাচন। কিন্তু বৈঠক শেষ হতেই পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।

সূত্রের খবর, অরবিন্দ ভবনের সামনে এ দিনই লিফলেট বিলি করছিল তৃণমূলের শিক্ষাকর্মী ইউনিয়ন। দাবি, সিসিটিভি বসাতে হবে বিশ্ববিদ্যালয়ে। বৈঠক শেষে যখন উপাচার্য বেরোচ্ছিলেন, তখন সেখানে ছিলেন ওই শিক্ষাকর্মীরা। একই সময়ে ছাত্র সংসদের নির্বাচনের দাবিতে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা। তখন ওই শিক্ষাকর্মীরা উপাচার্যকে আড়াল করার চেষ্টা করেন।

বিক্ষোভের মুখে পড়ে এই অবস্থায় তড়িঘড়ি গাড়িতে উঠতে যান উপাচার্য। কিন্তু পড়ুয়া ও শিক্ষকদের বাধায় আটকে যান তিনি। কিছুটা ধস্তাধস্তিও হয়। শেষ পর্যন্ত ফের বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিতরে চলে যান উপাচার্য। এর খানিকক্ষণ পরেই জানা যায় যে উপাচার্য অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। দু’জন পড়ুয়া জখম হয়েছেন বলেও জানা গিয়েছে। তাঁদের ,পধ্যে একজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে খবর।

শেষ খবর অনুযায়ী, যাদবপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের ঘরের সামনে অবস্থান বিক্ষোভে বসেছেন পড়ুয়ারা।

Shares

Comments are closed.