রবিবার, নভেম্বর ১৭

বেতন বাড়বে পুজোর আগেই, অভিরূপ সরকারের নবান্ন বৈঠকে আশা বাড়ছে কর্মী মহলে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ১০ জুন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, অভিরূপ সরকারকে নবান্নে ডেকে কথা বলবেন। এর পরে তিন দিনের মাথায় ১৩ জুন ষষ্ঠ বেতন কমিশনের চেয়ারম্যানের সঙ্গে বৈঠক। আর বৈঠক শেষে অভিরূপ সরকার জানিয়েছেন, খুব শীঘ্রই রিপোর্ট জমা দেওয়া হবে। বেতন কমিশন নিয়ে সরকারের এই তৎপরতা দেখেই আশা তৈরি হচ্ছে সরকারি কর্মচারীদের মধ্যে। অনেকেরই আশা, চলতি মাসেই জমা পড়তে পারে রিপোর্ট আর পুজোর আগেই মিলবে বেতন বাড়ার সুখবর।

অভিরূপ সরকারের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠকের পরে খুশি কর্মচারী সংগঠনগুলিও। এদিন তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থিত রাজ্য সরকারি কর্মচারী ফেডারেশনের আহ্বায়ক সৌম্য সিংহ বলেন, “আগেই বলেছি, মুখ্যমন্ত্রীর উপরে আমাদের আস্থা আছে, এখনও তাই বলছি। ওনার উপরে আমাদের ভরসা আছে।” অন্য দিকে, বাম কর্মচারী সংগঠন কো-অর্ডিনেশন কমিটির সাধারণ সম্পাদক বিজয়কুমার সিংহ বলেন, “অভিরূপ সরকারের সঙ্গে বৈঠকের পরে আমরাও আশাবাদী। এই রিপোর্ট অনেক আগেই জমা পড়ার কথা ছিল। শুনছি, তিনি এবার জমা দেবেন। এটা আশার কথা তব এর পরেও যদি সরকার কমিশনের মেয়াদ বাড়ায় তবে নিজের সম্মান বজায় রাখতে ওনার পদত্যাগ করা উচিত। উনিও সরকারের মতিগতি দেখে বিরক্ত।”

গত লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের ৪২ এর মধ্যে ৩৯টি আসনে পোস্টাল ব্যালটে হার হয়েছে শাসকদলের। আর তাতেই স্পষ্ট হয়ে যায় তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের উপরে সরকারি কর্মচারীদের ক্ষোভ ঠিক কতটা। এর পরেই ষষ্ঠ বেতন কমিশন নিয়ে তৎপর হয়েছে রাজ্য সরকার। ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, যতটা সম্ভব বেতন বৃদ্ধি করা হবে। কমিশন যা সুপারিশ করবে সেটা না হলেও সরকার সামর্থ্য মতো বেতন বাড়াবে। আর এই তৎপরতাই সরকারি কর্মচারীদের মধ্যে আশা তৈরি করেছে।

২০২১ সালে রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন। তার আগে ২০২০ সালে বেশ কয়েকটি পুরসভার নির্বাচন রয়েছে। তার আগে পুজোর মধ্যেই নতুন বেতন কাঠামো কার্যকর হয়ে যেতে পারে বলে কর্মচারী মহলে গুঞ্জন শুরু হয়েছে। অনেকে আবার মনে করছেন অতটা তাড়াতাড়ি না হলেও ২০২০ সালের ১ জানুয়ারি থেকে বেতন কাঠামোয় বদল আসতে পারে।

আরও পড়ুন

Exclusive: রাজ্য সরকারি কর্মীদের জন্য সুখবর, শীঘ্রই জমা পড়বে বেতন কমিশনের রিপোর্ট

Comments are closed.