Latest News

বোর্ড ওঁর টেস্ট নেতৃত্বও কেড়ে নেবে, এই ভয়ে নিজেই সরে গেল বিরাট

অশোক মালহোত্রা

 

আমি খুব সহজভাবেই বিষয়টিকে নিয়েছি। বিরাট কোহলি টেস্ট অধিনায়কত্ব থেকে সরার পরে দেখলাম, সবাই গাঙ্গুলিকে ধরছে। বলছে সৌরভের জন্যই সরল বিরাট, এটি ঠিক নয়। আমি এর মধ্যে অন্য কোনও কারণ দেখছি না।

পারফরম্যান্স না করলে বোর্ডের মাথায় যদি নিজের শ্বশুরমশাইও থাকেন, তা হলেও চাপ আসতে বাধ্য। অধিনায়ক কোহলি আচমকা খারাপ হয়ে গেল, আমি তা বলছি না। কিন্তু তোমাকে এটাও দেখতে হবে, তুমি আদৌ কতটা দলকে উদীপ্ত করতে পারছ।

প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে ভারতীয় ক্রিকেটারদের শরীরীভাষা দেখে মনে হয়েছে, এই দলটি যেন ১০বছর পিছিয়ে গিয়েছে। নিজেদের প্রতি সেই আত্মবিশ্বাস নেই। তার মধ্যে ডিআরএস নিয়ে নেতা কোহলি মাঠে যে আচরণটা করেছে, তা সমর্থনযোগ্য নয়। এতে করে ভারতীয় ক্রিকেটের গরিমা কলুষিত হয়েছে। এতে তুমি প্রমাণ করতে চাইছ, প্রযুক্তির দরকার নেই। অথচ যখন ডিআরএস নিয়ে সব অধিনায়কের মত চেয়েছিল, সেইসময় কোহলিরও স্বাক্ষর ছিল। তা হলে এমন পরস্পরবিরোধী দৃষ্টান্ত থাকবে কেন?

আমার মনে হয়েছে, কোহলির অধিনায়কত্ব এমনিতেই চলে যেত টেস্ট সিরিজে হারের পরে। কারণ বোর্ড হয়তো ঠিকই করে রেখেছিল, নতুন কাউকে দলের নেতা টেস্টেও করবে। সেই ভয়ে নিজেই সরে গিয়েছে কোহলি। কারণ বিরাটের মাথায় ছিল ওয়ান ডে থেকে বোর্ড তাকে সরিয়ে দিয়েছে। ওই ঘটনা তাঁকে তাড়া করে বেরিয়েছে।

তার থেকে বড় কথা, কোহলি যে টি ২০ অধিনায়কত্ব ছাড়া প্রসঙ্গে বোর্ডের মতকে গ্রাহ্য করেনি, তারপর আবার জানিয়েছিল ওকে কেউ অনুরোধই করেনি। এটা বিসিসিআই ভালমতন গ্রহণ করেনি। একজন জাতীয় দলের অধিনায়ক তথা দেশের আইকন প্রকাশ্যে বোর্ডের বিরুদ্ধে মুখ খুলছে, এটিও ঠিক নয়। এগুলি ভেতরে মিটিয়ে নিতে পারত।

সেই আশঙ্কা থেকেই মনে হয়েছে, তাঁকে টেস্টেও সরিয়ে দেবে। কারণ কোহলি নিজেই চাপ সৃষ্টি করেছে, কেউ তাকে চাপ নিতে বলেনি। তারপর আরও একটি বিষয় দৃষ্টিকটু লেগেছে, দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে কোচ দ্রাবিড় দু’বার পার্টি ডেকেছিল। একবারও কোহলিকে দেখা যায়নি। দলের নেতা হয়ে কেন অন্যদের থেকে বিচ্ছিন্ন থাকবে, এও ঠিক নয়। সবদিক থেকেই চাপের গহ্বরে বসেছিল বিরাট।

আমরা আশায় থাকব ক্রিকেটার কোহলি আবারও রানের এভারেস্ট স্পর্শ করুক। নেতা হিসেবে গত সাতবছরে অনেক দিয়েছে দেশকে। আইসিসি ট্রফি জেতেনি, এটিও যেমন কাঁটা হিসেবে বিঁধবে। আবার বিদেশের মাঠে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডে টেস্ট জয়ও ঐতিহাসিক হয়ে থাকবে।

You might also like