Latest News

অলিম্পিকের সুযোগ থেকে ছিটকে গেলেন হিমা, বিশ্ব ক্রম তালিকার ভিত্তিতে যাচ্ছেন দ্যুতি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আগেই অলিম্পিকের যোগ্যতামান পেরতে পারেননি, তারপর যাও বা সম্ভাবনা ছিল, সেটিও চোটের কারণে শেষ হিমা দাসের। ভারতের নামী অ্যাথলিটকে টোকিওতে আর দেখা যাবে না। তিনি লড়াই থেকেই ছিটকে গেলেন।

হিমা পারবেন না ধরাই ছিল, কারণ তাঁর পারফরম্যান্স পড়তির দিকে ছিল। বরং দ্যুতি চাঁদ ঘিরে আশা ছিল, তিনি যোগ্যতামান পেরতে না পারলেও বিশ্ব ক্রম তালিকার হিসেবে টোকিওতে জায়গা করে নিলেন। ওড়িশার অ্যাথলিটকে ১০০ ও ২০০ মিটার দৌড়ে দেখা যাবে।

বিশ্ব ক্রম তালিকা অনুসারে ১০০ মিটারে ২২টি কোটা ও ২০০ মিটারে ১৫টি কোটা রয়েছে। ১০০ মিটারের ক্রমপর্যায়ে দ্যুতি রয়েছেন ৪৪ নম্বরে এবং ২০০ মিটারে তিনি রয়েছেন ৫১ নম্বরে। এই র‍্যাঙ্কিংয়ের ভিত্তিতেই তিনি টোকিওতে অংশগ্রহণের সুযোগ পেয়ে গেলেন।

চলতি মাসে পাতিয়ালায় হওয়া আন্ত-রাজ্য সিনিয়র অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপে ভাল ফল করলে সরাসরি টোকিওর টিকিট পেয়ে যেতেন দ্যুতি। কিন্তু, মেয়েদের ১০০ মিটার ইভেন্টে চতুর্থ স্থানে শেষ করে অলিম্পিকে সরাসরি যোগ্যতা অর্জন করতে পারেননি তিনি। তবে গত সপ্তাহে, দ্যুতি এক নতুন জাতীয় রেকর্ড গড়েছেন।

পাতিয়ালায় অনুষ্ঠিত ভারতীয় গ্রাঁ প্রি-তে ১০০ মিটার দৌড় তিনি শেষ করেন ১১.১৭ সেকেন্ডে। অলিম্পিকে যোগ্যতা মান ছিল ১১.১৫ সেকেন্ড। মাত্র ০.০২ সেকেন্ডের জন্য সরাসরি টোকিওর ছাড়পত্র হাতছাড়া হয় দ্যুতির।

সরাসরি না হলেও ক্রম তালিকার দৌলতে টোকিও যাচ্ছেন দ্যুতি। কিন্তু ভারতীয় স্প্রিন্টার অসমের কন্যা হিমা সে সুযোগ পেলেন না। তিনি রয়েছেন ১০৮ নম্বরে। গত সপ্তাহে পাতিয়ালায় ভারতীয় গ্রাঁ প্রি-তে হিমা ২০০ মিটার শেষ করেন ২২.৮৮ সেকেন্ডে। অলিম্পিকের ছাড়পত্র পেতে হলে তাঁকে আরও ০.০৮ সেকেন্ড আগে শেষ করতে হত। তারপর চোটও তাঁকে ভোগাচ্ছে।

হিমা একসময় বিশ্ব জুনিয়র অ্যাথলেটিক্সে সোনা পেয়েছিলেন। তারপর তিনি সব পেয়েছেন। ভাল চাকরি পেয়েছেন, কেন্দ্রীয় সরকারের থেকে বহু সুবিধে পেলেও নিজেকে ধরে রাখতে পারেননি। যতটা এগোবেন ভাবা গিয়েছিল, তা তিনি পারেননি।

 

 

You might also like