Latest News

অক্সিজেন জোগাতে এগিয়ে এলেন শচীন, করোনা যুদ্ধে মোটা অনুদান মাস্টার ব্লাস্টারের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এবার সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন শচীন তেন্ডুলকর। মাত্র কিছুদিন আগেই তিনি নিজে করোনা জয় করে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন। এবার দেশে অক্সিজেন সরবরাহ স্বাভাবিক করতে অনুদান দিলেন বাইশ গজের মাস্টার ব্লাস্টার।

জানা গেছে, ‘মিশন অক্সিজেন’ নামের একটি উদ্যোগে সামিল হয়ে অনুদান দিয়েছেন শচীন। মোট ১ কোটি তাকা দিয়েছেন তিনি। এদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় তেন্ডুলকর নিজেই অনুদানের কথা জানিয়েছেন। নিজের অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেল থেকে তিনি লিখেছেন, “হাসপাতালে হাসপাতালে অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর মেশিন পৌঁছে দেওয়ার জন্য ‘মিশন অক্সিজেন’ নামের উদ্যোগ নিয়েছে তরুণরা। সেখানে কিছু অনুদান দিয়ে আমি সাহায্য করেছি। আশা করি এই উদ্যোগ খুব শিগগিরই আরও অনেক হাসপাতালে পৌঁছে যাবে।” যদিও অনুদানের অঙ্ক নিজের মুখে জানাননি মাস্টার ব্লাস্টার।

‘মিশন অক্সিজেন’-এর তরফে বিবৃতি দিয়ে শচীনের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানো হয়েছে। তাতেই জানা গেছে ঠিক কত টাকা অক্সিজেন তহবিলে তিনি দান করেছেন। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “হাসপাতাল গুলিতে জীবনদায়ী অক্সিজেন কনসেন্টেটর পাঠানোর জন্য ওঁর ১ কোটি টাকার অনুদান সত্যিই অমূল্য।”

প্রায় ২৫০-র বেশি তরুণ-তরুণী মিলে ‘মিশন অক্সিজেন’ নামে উদ্যোগ শুরু করেছে। তাঁদের লক্ষ্য যত বেশি সম্ভব অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর মেশিন দেশের বিভিন্ন প্রান্তের হাসপাতালে পৌঁছে দেওয়া। এর জন্যেই অর্থ সংগ্রহ করছে ‘মিশন অক্সিজেন’। এই উদ্যোগে সাড়া দিয়ে এগিয়ে এসেছেন শচীন তেন্ডুলকর। আরও মানুষকে এই উদ্যোগে সামিল হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

এদিন শচীন লিখেছেন, “আমি যখন ক্রিকেট খেলতাম তখন আপনাদের সমর্থন অমূল্য ছিল। তাই আমাকে জীবনে সফল হতে সাহায্য করেছে। আজ আমাদের সকলকে একজোট হয়ে কজ করতে হবে। যাঁরা সামনে থেকে কাজ করছেন তাঁদের পাশে দাঁড়াতে হবে।”

ভারত জুড়ে করোনা সংক্রমণ বেলাগাম হচ্ছে দিনের পর দিন। রোজ লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। জারি রয়েছে মৃত্যু মিছিলও। হাসপাতাল গুলিতে অক্সিজেনের হাহাকার দেখা দিয়েছে। এমন অবস্থায় শচীন তেন্ডুলকরের এই মানবিক উদ্যোগকে কুর্নিশ জানিয়েছেন সকলেই।

দিন কয়েক আগে শ্চীন নিজেও লড়াই করেছেন করোনার সঙ্গে। ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালেও ভর্তি হতে হয়েছিল তাঁকে। কিন্তু আবার সুস্থ হয়ে বাড়িও ফিরেছেন তিনি।

You might also like