Latest News

মোহনবাগান গ্যালারিতে বিক্ষোভের আগুন, আইএসএল শুরুর আগে অশান্তি তাঁবুতে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আইএসএলে (ISL) অভিযান শুরুর আগে অশান্তি মোহনবাগান (Mohun bagan) তাঁবুতে। শুক্রবার গোয়ায় কেরল ব্লাস্টার্সের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামবে এটিকে-মোহনবাগান। তার আগে বৃহস্পতিবার রাতের দিকে সবুজ মেরুন সমর্থকদের একাংশ তাঁবুতে প্রবেশ করেন। তাঁদের দাবি, এটিকে-র সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদ করতে হবে ক্লাবকে। কারণ এই ক্লাব কখনই তাঁদের নয়, সংযুক্তিকরণে সেই আবেগ নেই।

নজিরবিহীন এই বিদ্রোহে সামিল ছিলেন তরুণ সমর্থকরাই। সেইসময় ক্লাবে শীর্ষ কর্তারা কেউ ছিলেন না। দলের ম্যানেজার সঞ্জয় (বাপ্পা) ঘোষ ছাড়াও ফুটবল সচিব উত্তম সাহা ও মিডিয়া ম্যানেজার ইমরান খান ছিলেন। মূলত ইমরানের সঙ্গেই বচসা বাঁধে সমর্থকদের। ইমরান কিছু বিষয়ে কটু কথা বলতে সেটি নিয়ে প্রতিবাদ জানান সমর্থকরা। তাঁরা বলতে থাকেন, কথা ফিরিয়ে নিতে হবে, চাইতে হবে ক্ষমা।

আরও পড়ুন: ‘জান জান মহামেডান’, কীর্তির আলোয় উদ্ভাসিত বেলাল, আকবরদের গর্বের মুখ

এই নিয়ে ইমরান বেঁকে বসলেই অশান্তি বড় আকার ধারণ করে। এমনকি সঞ্জয় ও উত্তমের মতো অভিজ্ঞ কর্তারাও পরিস্থিতি আয়ত্ত্বে আনতে ব্যর্থ হন। তারপর অবশ্য ইমরান ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন।

সব থেকে প্রাসঙ্গিক বিষয়, আইএসএল অভিযান শুরুর মুহূর্তে এই বিক্ষোভ দানা বেঁধেছে। এমনকি সমর্থকদের দেখা যায় অন্ধকার গ্যালারিতে আগুন জ্বেলেও প্রতিবাদ সংঘটিত হয়েছে। একটি বিশাল ব্যানার নিয়ে আসা হয়, তাতে ইংরাজিতে লেখা ছিল, ‘‘এটিকে-মোহনবাগান ইজ নট মাই ক্লাব…’’। প্রায় পাঁচশো সমর্থক রাতে হাজির হয়েছিলেন তাঁবুতে।

বহুদিন ধরেই এটিকে-র সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে সমর্থকদের মধ্যে একটা অসন্তোষ রয়েছে। সেই নিয়ে ক্লাবের নামী কর্তারা জানিয়ে দিয়েছেন, যারা অর্থ দেবে, তাদের সঙ্গে সম্পর্ক রাখতেই হবে। সমর্থকরা যদি অর্থ দিয়ে ক্লাব চালান, সেটি তারা জানান, তা হলে স্পনসরদের সরিয়ে দেওয়া যেতে পারে। কিন্তু সদস্য-সমর্থকরা নিজেদের আবেগকেই বড় করে দেখছেন, ক্লাবের এত বিপুল পরিমান খরচ কে সামাল দেবে, সেই নিয়ে কোনও ভাবনা নেই, এটাই বক্তব্য শীর্ষ কর্তাদের।

যদিও এই নিয়ে কোনওদিন ক্লাবের পদাধিকারীরা সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেননি। এমনকি এটিকে কর্তারাও সমর্থকদের আবেগকে গুরুত্ব দিতে নারাজ। তাদের ভাবনা, অর্থ ঢালছি,মুনাফা চাই, কর্পোরেট এই ভাবনা থেকেই বেরিয়ে আসতে চান সবুজ মেরুন সমর্থকরাই।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like