Latest News

জিতে হারার কষ্ট বুকে নিয়েও করতালির সুনামি ইস্টবেঙ্গল তাঁবুতে

শোভন চক্রবর্তী

দৃশ্য এক: বিকেল চারটে পঁচিশ। ইস্টবেঙ্গল লনে লাগানো জায়ান্ট স্ক্রিনের সামনে এক চিলতেও জায়গা নেই।

দৃশ্য দুই: বিকেল চারটে চল্লিশ। দু’জন আধা কর্মকর্তা পরিস্থিতি সামাল দিতে বসার চেয়ার সরিয়ে নিচ্ছেন। যাতে মাটিতে আরও কিছু মানুষ বসে ‘স্বপ্নের ম্যাচ’ দেখতে পারেন।

দৃশ্য তিন: পাঁচটা বাজতে পাঁচ। গ্যালারির কাঠামো বেয়ে জনা সত্তর সমর্থক উঠে পড়লেন তাঁবুর উপর। কারও হাতে ক্লাবের পতাকা। কারও হাতে তেরঙা ফ্ল্যাগ। ভারত সেরা হওয়ার স্বপ্নে বুঁদ।

দৃশ্য চার: খেলা শুরুর তিন মিনিটের মধ্যেই উদ্বেল হয়ে উঠল ইস্টবেঙ্গল ক্লাব তাঁবুর লন। নাহ! এনরিকে বা কোলাডোর কোনও দুরন্ত আক্রমণ দেখে নয়। খবর এসেছে চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে গোল করেছে মিনার্ভা। স্বপ্ন যেন আকাশবাণীর সামনে এসে গিয়েছে। শুধু লেসলি ক্লডিয়াস সরণিতে ঢোকা বাকি।

তারপর খেলা চলতে থাকে। গোটা প্রথমার্ধ জুড়ে হতাশাজনক ফুটবল ইস্টবেঙ্গলের। দেখে মনে হচ্ছিল জেতার খিদেটাই নেই। বিরক্ত হচ্ছেন সমর্থকরা। তবু আশা। এগিয়ে রয়েছে মিনার্ভা। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই সামাদ আলি মল্লিককে মাঠে নামান লাল-হলুদ কোচ। খেলা ধরে ইস্টবেঙ্গল। কিন্তু তার মাঝেই গোল খেয়ে বসে। ও দিকে চেন্নাইয়ের মানজি তখন সমতা ফিরিয়ে এনেছেন পেনাল্টি থেকে। তারপর ইস্টবেঙ্গল খেলা শেষ করে ২-১ এ জিতে। ও দিকে চেন্নাইও ৩-১ গোলে উড়িয়ে দেয় রঞ্জিত বাজাজকে।

সব আয়োজন সারা ছিল। ব্যাগে ব্যাগে লাল-হলুদ আবির, আতসবাজি, অভ্রের গুঁড়ো । কিন্তু শেষ পর্যন্ত……

খেলা শেষের পর মাঝমাঠ সার্কেলে দাঁড়িয়েই ডানমাওয়াইয়া। কোচ আলেজান্দ্রো মেনেন্ডেজের দিকে ইশারায় জানতে চাইলেন ও দিকে কী খবর। আলেজান্দ্রো ডানের দিকে হাঁটতে হাঁটতেই আঙুলের ইশারায় দেখালেন ৩-১। ধপ করে মাটিতে বসে পড়লেন আজকের জয়সূচক গোলের নায়ক। ডিকা, কাশিম, কোলাডোরাও তখন আর যেন নিজেদের শরীরটা টেনে নিয়ে আসতে পারছেন না। না পাওয়ার আরও একটা বছর।

অথচ কলকাতায় খেলা শেষের পর করতালিতে ফেটে পড়ছে ইস্টবেঙ্গল তাঁবু। কোঝিকোড়ের ইএমএস স্টেডিয়ামে থাকা ফুটবলারদের উজ্জীবিত করার চেষ্টা! ‘আলেজান্দ্রো স্যারের’ নামে জয়ধ্বনি। লিগ না পেয়ে আফসোস আছে ঠিক, সেই সঙ্গে রয়েছে আরও বড় স্বপ্নের হাতছানি। লিগ হারার যন্ত্রণা আছে কিন্তু কর্মকর্তা বা খেলোয়াড়দের উদ্দেশে বাছা বাছা বিষেষণ নেই।

খেলা শেষের পর ইস্টবেঙ্গল ক্যাফেটেরিয়ার সামনে কোয়েসের নতুন সাদা টিশার্ট পরে হাউহাউ করে কাঁদছেন এক তরুণী। আর বছর ৬৫-র এক বৃদ্ধ গিয়ে তাঁর পিঠ চাপড়ে বলছেন, “চল মা চল। কাঁদিস না। টিমটা দাঁড়িয়ে গিয়েছে।”

আই লিগ না পেলেও সমর্থকদের ভরসার ট্রফিটা জিতে নিয়েছেন আলেজান্দ্রো। গত দেড় দশকে একের পর এক কোচ এসেছেন গিয়েছেন। প্রথম ইনিংসের মর্গ্যান কিছুটা পারলেও বাকি আর কেউ পারেননি। পারলেন স্প্যানিশ ভদ্রলোক।

You might also like