Latest News

সিন্ধু বন্দনায় মোদী থেকে শচীন, ‘আমি পারলে বাকিরাও পারবে’, বললেন ব্যাডমিন্টন রানি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গত সেমিফাইনাল ম্যাচে তাই জু-র কাছে হারের পরে মুশড়ে পড়েছিলেন খুবই। এতটাই যে কোরীয় কোচকে মেন্টাল ক্লাস নিতে হয়। কারণ তিনি ভেবেছিলেন টোকিওতে সোনা জিতে ফিরবেন। সেই মতোই করোনার মধ্যেও ট্রেনিং করেছিলেন। এমনকি ইংল্যান্ডে গিয়ে নিভৃতে ট্রেনিং করেছিলেন সিন্ধু।

যদিও রবিবার ভারতকে ফের পদক এনে দিয়ে গর্বিত সিন্ধু। তিনি মিডিয়া সেন্টারে এসে মিডিয়া প্রতিনিধিদের জানিয়েছেন, ‘‘দারুণ লাগছে, আমি পদক না পেলে কী করতাম জানি না। তবে আমি যদি পদক জিততে পারি, তা হলে দেশের বাকি অ্যাথলিটরাও পারবে। কারণ আমার লড়াই সহজ ছিল না।’’

বহু মানুষের প্রত্যাশা ছিল তাঁর ওপর। সারা দেশ তাঁর পদকের জন্য অপেক্ষা করেছে, তিনি জানেন আর জানেন বলেই বিবৃতি দিয়েছেন, ‘‘এটা অবশ্যই কঠিন পদক। ২০১৬ সালে আমার কোনও প্রত্যাশা বা চার ছিল না। টোকিওতে প্রত্যেকে চেয়েছিলেন পদক জিতে ঘরে ফিরি আমি। তাই সারা দেশের চাপ আমার ওপর ছিল।’’

শনিবার সেমিফাইনালে হেরে হতাশ ছিলেন। সিন্ধু বলেন, ‘‘গতকাল অত্যন্ত হতাশ হয়ে পড়েছিলাম। তবে কোচ বলতে থাকেন যে আমাদের হাতে আরও একটি সুযোগ আছে। আমায় পুরনো ভুলে ম্যাচের আগে শান্ত থাকতে হবে। কিন্তু আমি পারিনি। আমি প্রাণপণে ম্যাচ খেলতে চাইছিলাম। আমি যখন ম্যাচের জন্য স্টেডিয়ামের উদ্দেশে রওনা দিয়েছিলাম, তখনও ভাবছিলাম, কখন সময় আসবে।’’

সেই লড়াকু মনোভাবকে সঙ্গী করেই ম্যাচ বের করে নিয়েছেন। সিন্ধু জানান, ‘‘এই ম্যাচ জিততে যাবতীয় আবেগকে দূরে সরিয়ে রাখতে হয়েছে। আমি নিশ্চিত যে অনেক তরুণ খেলোয়াড় এটাকে অনুপ্রেরণা হিসেবে দেখবেন। আমি যদি করতে পারি, তাহলে যে কেউ করতে পারবেন বলে নিশ্চিত আমি।’’

এদিকে, টুইটারে নরেন্দ্র মোদী সিন্ধুকে শুভেচ্ছাবার্তা জানাতে গিয়ে লেখেন, “পিভি সিন্ধুর দারুণ পারফরম্যান্স দেখে আমরা সবাই আনন্দিত। টোকিও অলিম্পিকে ব্রোঞ্জ জেতার জন্য অভিনন্দন। তিনি ভারতের গর্ব এবং আমাদের অন্যতম, অসাধারণ অলিম্পিয়ান।”

ক্রিকেটের কিংবদন্তি শচীন তেন্ডুলকর টুইটারে লেখেন, “২০১৬-তে রুপো এবং ২০২০-তে ব্রোঞ্জ। অলিম্পিকে দু’বার পদক পাওয়া পিভি সিন্ধুর দারুণ প্রাপ্তি। তুমি পুরো দেশকে অনেক অনেক গর্বিত করলে।”

রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ টুইটারে শুভেচ্ছা বার্তায় লেখেন, “পর পর দু’টি অলিম্পিক গেমসে পদক জয়ী প্রথম ভারতীয় মহিলা পিভি সিন্ধু। তিনি ধারাবাহিকতা, নিষ্ঠা এবং শ্রেষ্ঠত্বের নতুন মাপকাঠি স্থাপন করলেন। ভারতকে গর্বিত করার জন্য তাঁকে আন্তরিক অভিনন্দন।”

 

 

You might also like