Latest News

ধুতি, ফতুয়া পরে ক্রিকেট, কমেন্ট্রি সংস্কৃতে, ভোপালে পুরোহিতদের অভিনব ম্যাচ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এমন ক্রিকেট ম্যাচ কেউ দেখেনি, পাড়ার মাঠেও হয় না। প্যান্ট, জার্সি নয়, ধুতি, ফতুয়া, পাঞ্জাবী পরে ক্রিকেট খেলছেন পুরোহিতরা। ভোপালের এই ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ঘিরে সাজো সাজো রব পড়ে গিয়েছে। খেলা দেখতে ভিড় করছেন মানুষ।

উপলক্ষ্য মহির্ষী মহেশ যোগীর জন্মবার্ষিকী অনুষ্ঠান। এই অনুষ্ঠানকে বর্ণময় করতে পুজোপাঠ করেন যাঁরা, সেই সব পুরোহিত, বৈদিক পণ্ডিতদের নিয়ে হয়েছে ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। ভারত যে বহু ধর্মের দেশ, এই সব ঘটনাই তার প্রমাণ। ভারতীয় সংস্কৃতির প্রতি সম্মান বজায় রেখে এই ম্যাচগুলি হচ্ছে। সংস্কৃতে হচ্ছে খেলার কমেন্ট্রি।

সব থেকে প্রাসঙ্গিক বিষয়, এই ক্রিকেট খেলার চল শুধু ভোপালে নয়, সার্বিকভাবে হচ্ছে কাশ্মীর, কাশীতেও। সেখানেও রাতের আলোয় পুরোহিতরা ক্রিকেট খেলছেন দৈনন্দিন কাজকর্ম সেরে।

হিন্দির চাপে সংস্কৃত ভাষা অবলুপ্তির পথে। ভোপালের এক সংগঠন আজও সংস্কৃত আঁকড়ে ধরেই এগোতে চান। আর তাই ভাষাটাকে বাঁচিয়ে রাখার আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছেন। তারা দেবনাগরী ভাষায় ক্রিকেট ম্যাচের ধারাভাষ্য দিচ্ছেন। এই নিয়েও আগ্রহ তৈরি হয়েছে।

‘সংস্কৃত বাঁচাও মঞ্চ’এর শীর্ষকর্তা চন্দ্রশেখর তিওয়ারি বলেছেন, ‘‘গত বছর থেকে এই ক্রিকেট টুর্নামেন্ট চলছে। পুজোপাঠ করেন যে সব পুরোহিত কিংবা বৈদিক পণ্ডিত, তাঁরাই এতে অংশ নেন। ধুতি-ফতুয়া পরার পাশাপাশি সমস্ত ক্রিকেটার সংস্কৃতেই কথা বলেন। শুধু তাই নয়, ম্যাচের ধারাভাষ্যও দেওয়া হয় সংস্কৃতে।’’

এই ক্রিকেট টুর্নামেন্ট কভার করার জন্য আসছে বহু মিডিয়া চ্যানেল। তারা সারাদিন ধরে কভার করছে এই ম্যাচগুলি।

You might also like