ধোনির জাড্ডুর প্রতাপে নাইটরা হেরে আরও সঙ্কটে

৪২২

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

 

অশোক মালহোত্রা

স্যাম কুরান ও রবিন্দর জাদেজা যখন খেলছিল, মন বলছিল চেন্নাই হয়তো বাজিমাত করে দেবে। হলও তাই, শেষ ওভারে দরকার ছিল ১০ রান। জাদেজা থাকলে সব সম্ভব, সেটাই ফের প্রমাণ করে ছাড়ল।

একটা ব্যাটসম্যানের আত্মবিশ্বাস কোন পর্যায়ে থাকলে এই ম্যাচ বের করা যায়, কল্পনাতীত। জাদেজা করেছে ১১ বলে ৩১ রান, এই হার না মানা ইনিংসে রয়েছে ২টি চার ও তিনটি ছয়। কুরান সঙ্গত দিল ১৪ বলে ১৩ রানের কার্যকরি ইনিংস খেলে।

তার আগে যদিও চেন্নাই সুপার কিংসের ভিত গড়ে দিয়েছেন ওপেনার ঋতুরাজ গায়কোয়াড, ৫৩ বলে ৭২ রানের ইনিংসে ছিল তার ছয়টি বাউন্ডারি ও দুটি ছক্কা। কামিন্সের বলে ঋতু চলে যাওয়ার পরে আতঙ্ক ছিল। সেটাই কাটিয়ে দিল জাড্ডু।

আমার কাছে পরিষ্কার নয়, নাইটদের তিন সেরা বোলার হল কামিন্স, নারিন ও বরুণ চক্রবর্তী। এই তিন বোলারকে ১৮ ওভারের মধ্যে শেষ করে দেওয়ার মানেটা কী! শেষ দু’ওভারের জন্য একজন বোলারকে রেখে দেওয়া উচিত ছিল। হাতের গোপন তাস রেখে দিতে হয় কিস্তিমাতের জন্য। অনভিজ্ঞ নাগরকোটিকে দিয়ে শেষ ওভার করানোর কৌশল খাটেনি। আর এটাই স্বাভাবিক ছিল।

কেকেআরের এই দলটিকে দেখে আমার বেশ অবাক লাগছে। জানি না কোচ কীভাবে ম্যাচের কৌশল নিচ্ছেন। টোয়েন্টি ২০ ক্রিকেটে ব্যাটিং অর্ডার সাজানো বড় ছকের একটা। কারণ দলের সেরা ব্যাটসম্যানদের এখানে আগে পাঠালে ভাল, কারণ সময় যত কমতে থাকবে, তত বেশি চাপে পড়ে যাওয়া।

এই কারণেই বলতে চাই মরগ্যানকে পরে নামিয়ে রিঙ্কু সিং, নারিনকে আগে নামানোর মানে কী! রাসেল যখন খেলছে না, সেইসময় মরগ্যানকে চারে নামিয়ে কোচ দেখতে পারতেন।

কেকেআরের ওপেনিং জুটি ক্লিক করেছে, এটা বোঝা যাচ্ছে। গিল ও রানা জুটি বৃহস্পতিবারও সফল। নীতিশ রানা তো অসাধারণ। ৬১ বলে ৮৭ রানের ইনিংসে রয়েছে ১০টি চার, ওভার বাউন্ডারি মেরেছে চারটি। শুভমান করেছে ১৭ বলে ২৬ রান। তারপর আর সেই অর্থে কেউ সফল হয়নি। মরগ্যান করেছে ১৫ ও দীনেশ কার্তিকের অবদান ১০ বলে ২১। চেন্নাইয়ের সফল বোলার লুঙ্গি এনগিডি, ৩৪ রানে দুই উইকেট পেয়েছে।

ম্যাচে রানার ওই দুর্দান্ত ইনিংস, তারপর চেন্নাই ইনিংসে ঋতুরাজ গায়কোয়াডের ৫৩ বলে ৭২ রানের ইনিংসের পরেও জাদেজা যেভাবে দলকে জেতাল আমার বিচারে ওই ম্যাচের সেরা। এই হারের ফলে ধোনিদের ফিরে আসার কোনও আশা নেই। কিন্তু কেকেআরের প্লে অফ অঙ্ক বেশ জটিল হয়ে গেল। তারা ১৩ ম্যাচে ১২ পয়েন্টে পাঁচে চলে গেল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর : কলকাতা নাইট রাইডার্স ২০ ওভারে ১৭২/৫। নীতিশ রানা ৮৭, গিল ২৬, এনগিডি ২/৩৪।
চেন্নাই সুপার কিংস ১৭৮/৪ । ঋতুরাজ ৭২, রায়ডু ৩৮, জাদেজা ৩১ অপরাঃ, ধোনি ১, বরুণ ২/২০, কামিন্স ২/৩১।
চেন্নাই সুপার কিংস জয়ী ছয় উইকেটে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More