বুধবার, নভেম্বর ২০
TheWall
TheWall

মহারাষ্ট্রে সরকার গঠন নিয়ে অচলাবস্থা জারি, সোমবার সন্ধ্যায় রাজ্যপালের কাছে যাচ্ছেন শিবসেনা এমপি

দ্য ওয়াল ব্যুরো : মহারাষ্ট্রে বিধানসভা ভোটের ফল বেরিয়েছে দিন দশেক আগে। সরকার গঠন করা তো দূরের কথা দিন দিন আরও তীব্র হচ্ছে বিজেপি ও শিবসেনার দ্বন্দ্ব। সোমবার সকালে জানা যায়, শিবসেনার সাংসদ সঞ্জয় রাউত এদিন সন্ধ্যায় রাজ্যপাল ভগৎ সিং কোশিয়ারির কাছে যাচ্ছেন। তিনি রাজ্যপালকে অনুরোধ করবেন, ভোটে যে দলটি সবচেয়ে বেশি আসন পেয়েছে, তাকে সরকার গড়তে ডাকা হোক। অন্যদিকে বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশ এদিন যাচ্ছেন দিল্লিতে। তিনি দলের সভাপতি অমিত শাহের সঙ্গে কথা বলবেন।

সোমবার সঞ্জয় রাউত সাংবাদিকদের বলেন, “আমরা গোপনে কোনও আলোচনা চালাচ্ছি না। একটা অচলাবস্থা দেখা দিয়েছে। আমরা তার জন্য দায়ী নই। বিধানসভায় সবচেয়ে বড় দল হিসাবে বিজেপিকেই প্রথমে সরকার গড়তে ডাকা উচিত। তারা যদি সরকার গড়তে না পারে, আমরা দাবি জানাব।” গত ২৪ অক্টোবর রাজ্যে বিধানসভা ভোটের ফল প্রকাশের পর সঞ্জয় রাউত ইতিমধ্যে দু’বার রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করেছেন। সোমবার সন্ধ্যায় তৃতীয়বারের জন্য দেখা করবেন।

২৮৮ সদস্য বিশিষ্ট মহারাষ্ট্র বিধানসভায় বিজেপি পেয়েছে ১০৫ টি আসন। শিবসেনা পেয়েছে ৫৬ টি। কোনও দল বা জোট মোট ১৪৫ টি আসন পেলে সরকার গঠন করতে পারে। সরকার গড়ার মতো সংখ্যা বিজেপি-শিবসেনা জোটের আছে। কিন্তু ফলপ্রকাশের পরেই শিবসেনা দাবি করে, ৫০-৫০ ফরমুলার ভিত্তিতে সরকার গড়তে হবে। আড়াই বছরের জন্য মুখ্যমন্ত্রীর পদটি তাদের ছেড়ে দিতে হবে। শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে দাবি করেন, মে মাসে লোকসভা ভোটের আগে অমিত শাহ তাঁকে কথা দিয়েছিলেন, ৫০-৫০ ফরমুলায় সরকার গঠন করা হবে। যদিও বিজেপি একথা স্বীকার করেনি।

শিবসেনার মুখপত্র ‘সামনা’-য় রবিবার সম্পাদকীয়তে লেখা হয়েছে, ১৭০ জন বিধায়ক তাদের সমর্থন করছেন। প্রয়োজনে নতুন করে জোট গড়া যেতে পারে। ইতিমধ্যে কংগ্রেস ও এনসিপির সঙ্গে যোগাযোগ করেছে শিবসেনা। গত সপ্তাহে উদ্ধব ঠাকরে ফোনে এনসিপি প্রধান শরদ পওয়ারের সঙ্গে কথা বলেছেন। পওয়ার এদিন সন্ধ্যায় কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধীর সঙ্গে দেখা করতে পারেন বলে জানা যাচ্ছে।

Comments are closed.