রবিবার, নভেম্বর ১৭

কেন্দ্রের হারেই ডিএ রাজ্যে, ট্রাইবুনালে বড় ধাক্কা খেল রাজ্য সরকার

দ্য় ওয়াল ব্য়ুরো: কেন্দ্রের হারেই রাজ্যকে ডিএ দিতে হবে। খেয়ালখুশি মতো মহার্ঘ ভাতা বাড়ানো যাবে না। আগামী তিন মাসের মধ্যে জানাতে হবে নীতি। দিতে হবে যাবতীয় বকেয়া ডিএ।

২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতেই ডিএ সংক্রান্ত দাবি নিয়ে স্যাটের দ্বারস্থ হয়েছিল বিভিন্ন সরকারি কর্মচারী সংগঠন। প্রথমে মামলাটি শুনতেই অস্বীকার করে স্যাট। এর পরে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হলে ২০১৮ সালে হাইকোর্ট জানায়, ডিএ কর্মীদের অধিকার। রাজ্য সরকারের তরফে তার আগে হাইকোর্টকে বলা হয়েছিল, ডিএ কোনও অধিকার নয়, ডিএ সরকারের ইচ্ছাধীন।

দীর্ঘ অপেক্ষার শেষে আজ সেই রায়ে জয় হল রাজ্য সরকারি কর্মীদেরই। রায়ে স্যাট জানিয়েছে–

১। কেন্দ্রীয় হারে ডিএ দিতে হবে রাজ্যকে।

২। সেটা না দিলে বৈষম্যমূলক আচরণ হবে।

৩। তিন মাসের মধ্যে সিদ্ধান্ত নিতে হবে রাজ্য সরকারকে।

৪। ২০১১ সাল থেকে খেয়ালখুশি মতো ডিএ বাড়ানো হয়েছে। এটা ঠিক করতে হবে। অনিয়মিত ডিএ দেওয়ায় বকেয়া বেড়েছে।

৫। ভিন রাজ্যে কাজ করা রাজ্য সরকারি কর্মীদের কেন্দ্রের হারে ডিএ দিলেও রাজ্যে দেওয়া হয়নি। এটা বৈষম্যমূলক আচরণ।

৬। এখন কেন্দ্রের থেকে রাজ্যের বেতনের ফারাক ২৯ শতাংশ। এই ফারাক রাখা চলবে না।

৭। দ্রব্য মূল্য বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে বছরে দু’বার ডিএ বৃদ্ধি সরকারি কর্মচারীদের অধিকার।

৮। গোটা দেশের প্রাইস ইনডেক্স অনুযায়ী ডিএ-র হার নির্ধারণ করতে হবে।

Comments are closed.