মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৭

জেলে সবাই যা খায়, তিহাড়ে তাই খেতে হবে চিদম্বরমকে, সাফ কথা হাইকোর্টের

দ্য ওয়াল ব্যুরো : প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমকে বাড়িতে রান্না করা খাবার খেতে দেওয়া হোক। বৃহস্পতিবার চিদম্বরমের কৌঁসুলি কপিল সিব্বল এমনই আবেদন করেন দিল্লি হাইকোর্টে। তার জবাবে বিচারপতি পরিষ্কার বলে দেন, তিহাড় জেলে অন্য বন্দিরা যা খান, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকেও তাই খেতে হবে। সেই শুনে, কপিল সিব্বল বলেন, মাই লর্ড, চিদম্বরমের বয়স ৭৪ বছর।

প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর জামিনের জন্য এদিন দিল্লি হাইকোর্টে আবেদন জানানো হয়। তখনই কপিল সিব্বল তাঁকে বাড়ির রান্না করা খাবার দেওয়ার কথা বলেন। সরকারের তরফে সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা বলেন, আইএনএলডি নেতা ওমপ্রকাশ চৌতালাও বয়স্ক। তিনি বন্দি অবস্থায় অন্যান্য কয়েদির জন্য বরাদ্দ খাবারই খেয়ে থাকেন। সরকার কোনও বন্দিকে বাড়তি সুযোগ-সুবিধা দিতে পারে না। বিচারপতি সুরেশকুমার কাইত বলেন, একই খাবার সকলকেই দেওয়া হবে।

এদিন শুনানির সময় কপিল সিব্বল বলেন, আমার মক্কেলের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আছে, তাতে তাঁর সর্বাধিক সাত বছর জেল হতে পারে। একইসঙ্গে তিনি বলেন, ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪২০ ধারা চিদম্বরমের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হতে পারে না। সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা বলেন, আমরা এখন চার্জশিট দেওয়ার পর্যায়ে আছি। অভিযুক্ত ব্যক্তি ২১ অগস্ট গ্রেফতার হয়েছেন। তাঁর বিরুদ্ধে ২০০৭ সালে অপরাধ করার অভিযোগ আছে। পি চিদম্বরম দুর্নীতি করেছিলেন।

বিচারপতি কপিল সিব্বলকে জিজ্ঞাসা করেন, অভিযুক্তকে ৫ সেপ্টেম্বর জেলে পাঠানো হয়েছে। তারপরেই আপনারা জামিনের জন্য আবেদন করেননি কেন? সিব্বল বলেন, তার পরে বেশ কয়েকদিন ছুটি ছিল।

Comments are closed.