মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩

লন্ডনে অত সম্পত্তি কিনলেন কী করে? শনিবারও জেরার মুখে রবার্ট বঢরা

দ্য ওয়াল ব্যুরো : পরপর তিনদিন। বৃহস্পতি ও শুক্রবার দু’দিনে এনফোর্সমেন্ট ডায়রেক্টরেট মোট ১১ ঘণ্টা জেরা করেছে কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়ঙ্কা গান্ধীর স্বামী রবার্ট বঢরাকে। শনিবারও তিনি গিয়েছেন ইডি-র অফিসে। তাঁকে জেরা করা হচ্ছে এদিনও।

রবার্টের অভিযোগ, রাজনৈতিক কারণেই তাঁকে এমন দীর্ঘ জেরার মুখে পড়তে হচ্ছে। তাঁকে হেনস্থা করাই ইডির উদ্দেশ্য। কিন্তু ইডির অভিযোগ, লন্ডনে বেআইনিভাবে ১ কোটি ২০ লক্ষ পাউন্ডের সম্পত্তির মালিক হয়েছেন ইউপিএ-র চেয়ারপার্সন সনিয়া গান্ধীর জামাই। অস্ত্রব্যবসায়ী সঞ্জয় ভাণ্ডারী, তাঁর এক আত্মীয় ও ওপর দু’জন নাকি ওই সম্পত্তির মালিক হতে সাহায্য করেছিলেন রবার্টকে। তাঁদের সম্পর্কেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে প্রিয়ঙ্কার স্বামীকে।

এদিন বেলা পৌনে ১১ তা নাগাদ সেন্ট্রাল দিল্লির জামনগর হাউসে ইডি-র অফিসে আসেন বঢরা। বৃহস্পতি ও শুক্রবার প্রিয়ঙ্কা তাঁকে ইডির অফিসে পৌঁছে দিয়ে গিয়েছিলেন। জেরার শেষে গাড়িতে তুলে নিয়ে গিয়েছিলেন তাঁকে। কিন্তু শনিবার তাঁকে দেখা যায়নি। একটি সূত্রের খবর, এদিন কংগ্রেস অফিসে তিনি এক গুরুত্বপূর্ণ মিটিং-এ উপস্থিত থাকবেন।

দিল্লির আদালতে ইডি জানিয়েছে, লন্ডনে বিপুল সম্পত্তির মালিক হয়েছেন বঢরা। তার মধ্যে আছে দু’টি বাড়ি। একটির দাম ৫০ লক্ষ পাউন্ড, অপরটির দাম ৪০ লক্ষ পাউন্ড। ১২ ব্রায়ানস্টন স্কোয়ারে তাঁর একটি সম্পত্তি আছে যার দাম ১৯ লক্ষ পাউন্ড। এছাড়া তাঁর আরও ছ”টি ফ্ল্যাট ও অন্যান্য সম্পত্তি আছে।

বঢরার আইনজীবী কে টি এস তুলসী বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের জানান, তাঁর মক্কেল কোনও বেআইনি কাজ করেননি। বৃহস্পতি ও শুক্রবার ইডির তিন অফিসারের একটি টিম বঢরাকে অন্তত দু’ডজন প্রশ্ন করেছে। অর্থ তছরুপ দমন আইনের সেকশন ৫০ অনুযায়ী রেকর্ড করা হয়েছে তাঁর বয়ান।

বৃহস্পতিবার তদন্তকারীরা বঢরাকে কয়েকটি ই-মেল দেখিয়ে প্রশ্ন করেন। অভিযোগ, সঞ্জয় ভাণ্ডারীর আত্মীয় সুমিত চাঢা ওই মেলগুলি পাঠিয়েছিলেন বঢরাকে। তাতে বলা হয়েছিল, ১২ ব্রায়ানস্টন স্কোয়ারের ম্যানসন সারানোর জন্য অর্থ দিন। বঢরা নাকি তার জবাবে মেল করেছিলেন, কাল সকালে বিষয়টি বিবেচনা করব। মনোজকে বলব ব্যাপারটা দেখতে। মনোজের পুরো নাম মনোজ অরোরা। তিনি একসময় স্কাইলাইট হসপিটালিটি নামে এক সংস্থার কর্মচারী ছিলেন। সংস্থার মালিক ছিলেন বঢরা।

ইডির বক্তব্য, ১২ ব্রায়ানস্টন রোডের ওই সম্পত্তির মালিক যদি বঢরা নাই হবেন, তবে তিনি ওই বাড়ি সারানোর জন্য অর্থ দেওয়ার কথা বিবেচনা করছেন কেন?

Shares

Comments are closed.