শনিবার, সেপ্টেম্বর ২১

কাঁদার দরকার কী, বৈশাখীর কান্না নিয়ে জবাবে মাথা ঠান্ডা রাখার পরামর্শ পার্থর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শোভন-বৈশাখীর অভিযোগ উড়িয়ে দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এদিনই সাংবাদিক সম্মেলন করে মিলি আল আমিন কলেজের শিক্ষিকা পদে ইস্তফা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন বৈশাখী। আর সেই ঘোষণার সময়েই হাউহাউ করে কেঁদে ফেলেন তিনি। সেই সময়েই বৈশাখী অভিযোগের সুরে বলেন, শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের অনুরোধ মেনে শোভন চট্টোপাধ্যায় তৃণমূল কংগ্রেসে না ফেরার সিদ্ধান্তের জন্যই হেনস্থা করা হচ্ছে তাঁকে। একই সুরে অভিযোগ তুলেছেন শোভন চট্টাপাধ্যায়ও। এর পরে পরেই সাংবাদিক সম্মেলন করে যাবতীয় অভিযোগ উড়িয়ে দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

গত ২৩ জুলাই পার্থবাবু শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক করেন। প্রাক্তন মেয়রের বাড়িতে ওই বৈঠকে হাজির ছিলেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ও। সেখানেই শোভন চট্টোপাধ্যায়কে তৃণমূল কংগ্রেসে ফেরার অনুরোধ করা হয় বলে দাবি করেছেন বৈশাখী। আর সেই অনুরোধে শোভন চট্টোপাধ্যায় রাজি না হওয়াতেই বৈশাখীকে হেনস্থা করা হতে পারে বলেই দাবি। এর জবাবে পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, শোভন এখনও দলেই রয়েছেন। দলের বিধায়ক, কাউন্সিলার। তাঁকে ফেরানোর কোনও প্রশ্ন নেই। সক্রিয় করতে গিয়েছিলাম। আর তাতেও কোনও শর্তই ছিল না।

একই সঙ্গে তিনি বলেন, বৈশাখী কাঁদছেন কেন, আমার কাছে এসে বললেই তো হয়। তাঁর বিরুদ্ধে কোনও চক্রান্ত নেই। তিনি আমার কাছে এসে বললে, শিক্ষা দফতর দেখবে কী ভাবে তাঁকে সাহায্য করা যায়। আমি বলব, তিনি পদত্যাগ না করে নিজের দায়িত্ব পালন করুন।

Comments are closed.