রবিবার, ডিসেম্বর ১৫
TheWall
TheWall

রাহুলকে আরও সতর্ক হয়ে কথা বলতে হবে, মন্তব্য সুপ্রিম কোর্টের

দ্য ওয়াল ব্যুরো : লোকসভা নির্বাচনের আগে তৎকালীন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী স্লোগান দিয়েছিলেন, ‘চৌকিদার চোর হ্যায়’। কংগ্রেসের অভিযোগ ছিল, রাফায়েল যুদ্ধবিমান কেনার সময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বন্ধু তথা শিল্পপতি অনিল অম্বানীকে বিশেষ সুবিধা পাইয়ে দেওয়া হয়েছে। মোদী নিজেকে জনগণের চৌকিদার বলতেন। রাহুল একসময় বলেন, সুপ্রিম কোর্টও মেনে নিয়েছে, চৌকিদার চোর হ্যায়। এই মন্তব্যের পর রাহুলের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছিলেন বিজেপি নেত্রী মীনাক্ষী লেখি। সেই মামলা বৃহস্পতিবার বন্ধ করে সুপ্রিম কোর্ট। তবে একইসঙ্গে বিচারপতিরা রাহুলকে সতর্ক করে বলেছেন, ভবিষ্যতে তিনি যেন আরও সতর্ক হয়ে মন্তব্য করেন।

রাফায়েল বিতর্কে কয়েকটি নথি কোর্টে পেশ করতে আপত্তি জানিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। গত ১০ এপ্রিল সুপ্রিম কোর্ট সেই আপত্তি নাকচ করে দেয়। তখন রাহুল বলেন শীর্ষ আদালত মেনে নিয়েছে, চৌকিদার চোর হ্যায়। পরে তিনি আদালতে নিঃশর্তে ক্ষমা চান। তিনি বলেন, সুপ্রিম কোর্টের মন্তব্যের পরেই ওই কথা বলা তাঁর উচিত হয়নি।

মীনাক্ষী লেখির পক্ষে কৌঁসুলি ছিলেন মুকুল রোহতগি। তিনি বলেন, রাহুলের ক্ষমাপ্রার্থনা গ্রহণ করা উচিত নয়। তাঁর বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। পরে তিনি বলেন, রাহুলকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে বাধ্য করা উচিত।

গত ৮ মে রাহুল বলেন, সুপ্রিম কোর্টের প্রতি তিনি অত্যন্ত শ্রদ্ধাশীল। তিনি যে মন্তব্য করেছিলেন, তার পিছনে বিশেষ কোনও উদ্দেশ্য ছিল না।

গত ১৫ এপ্রিল সুপ্রিম কোর্ট নির্দিষ্ট করে বলে, রাফায়েল নিয়ে মন্তব্যে কোথাও বলা হয়নি ‘চৌকিদার চোর হ্যায়’। রাহুল বলেন, রাজনৈতিক প্রচারের সময় উত্তেজনার বশে তিনি ওই মন্তব্য করে ফেলেছেন। সুপ্রিম কোর্টকে অসম্মান করার কোনও ইচ্ছা তাঁর ছিল না।

পরে তিনি বলেন, বিজেপির শীর্ষ নেতারা আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রচার করছিলেন। তাঁরা বলছিলেন, গত বছর ১৪ ডিসেম্বর সুপ্রিম কোর্ট রাফায়েল বিতর্কে তাঁদের ক্লিনচিট দিয়েছে। তার বিরুদ্ধে প্রচার করার জন্যই তিনি ওই মন্তব্য করে ফেলেছিলেন।

Comments are closed.