বুধবার, ডিসেম্বর ১১
TheWall
TheWall

সীমান্তের সন্ত্রাস নিয়ে এক সুর সব দলের, কেন্দ্রের পাশে থাকার বার্তা

  • 147
  •  
  •  
    147
    Shares

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সুরটা বেঁধে দিয়েছিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। পুলওয়ামা নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠকের পর সমস্ত দলের প্রতিনিধিই সেই ঐক্যের বার্তাই দিলেন। সীমান্তের সন্ত্রাস নিয়েও সরব হল সব দল।

পুলওয়ামা কাণ্ড নিয়ে শুক্রবার সর্বদলীয় বৈঠক ডেকেছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। সেই বৈঠকে সর্বসম্মত ভাবে তিন দফা প্রস্তাব গৃহীত হয়। যার সার কথা, এই সময়ে কোনও রাজনৈতিক বিতর্ক নয়। ঐক্যবদ্ধভাবেই দেশকে রক্ষা করতে হবে।

কংগ্রেসের গুলাম নবি আজাদ, জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া থেকে তৃণমূলের সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, সিপিআই-এর ডি রাজা, সকলেই উপস্থিত ছিলেন এ দিনের সর্বদলীয় বৈঠকে। সেই বৈঠকে ঠিক হয়েছে, সীমান্তে সন্ত্রাস রুখতে এবং দেশের অখণ্ডতা ও ঐক্য রক্ষা করতে, নিরাপত্তাবাহিনীর পাশে দাঁড়ানোটাই এখন আশু কাজ।

পুলওয়ামার ঘটনা ঘটেছিল বৃহস্পতিভার বেলা সাড়ে তিনটের সময়। চারটের সময় লখনউয়ে প্রিয়ঙ্কা গান্ধী বঢড়ার সাংবাদিক বৈঠক থাকলেও তা বাতিল ঘোষণা করা হয়। শুক্রবার সকালে কংগ্রেস সদর দফতরে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং-কে পাশে বসিয়ে রাহুল স্পষ্ট বলে দেন, “এখন রাজনৈতিক বিতর্কের সময় নয়। এই পরিস্থিতিতে আমরা সরকারের পাশে আছি।”

গতকাল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, কেন্দ্রীয় ক্যাবিনেটের নিরাপত্তা বিষয়ক কমিটির বৈঠকের পর উত্তরপ্রদেশের ঝাঁসির সভা থেকে নাম না করে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কড়া বার্তা দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, “পড়শি দেশকে এর মূল্য চোকাতেই হবে।” সেই সঙ্গে এ-ও বলেছিলেন, কবে, কখন, কী ভাবে প্রত্যাঘাত, সেটা সেনাবাহিনী ঠিক করুক। পারমিশন দিয়ে দিয়েছি।” এ দিনও সর্বদল বৈঠকে বারবার উঠে এল সেই সীমান্ত সন্ত্রাসের কথাই। সন্ত্রাসবাদকে খতম করতে সব দলই সরকারের পাশে রয়েছে বলে জানিয়েছে। বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ বলেন, “দেশ এবং সেনার নিরাপত্তার স্বার্থে আমরা সরকারের পাশে আছি। কাশ্মীর হোক বা দেশের অন্য কোনও প্রান্ত, সন্ত্রাসবাদকে নিশ্চিহ্ন করতে কংগ্রেস তাদের পূর্ণ সমর্থন দেবে সরকারকে।”

Comments are closed.