মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৫

‘শুভ মহালয়া ’ বলা কি আদৌ ঠিক, জেনে নিন কী বলছে সনাতন ধর্ম

  • 379
  •  
  •  
    379
    Shares

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পুজোর গন্ধ এসে গিয়েছে। ফুরফুরে মন, বাইরে আগমনী সুগন্ধ, আর সাতসকালে বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্র। মহালয়ার দিন মানেই সকাল থেকেই ভরে ওঠে ফেসবুকের নিউজফিড, হোয়্যাটসঅ্যাপে ঘন ঘন মেসেজ। আপনিও পাঠাবেন বন্ধুবান্ধব বা আত্মীয়দের। সেসব মেসেজে দেদার লিখেও চলেছেন ‘শুভ মহালয়া’। কিন্তু এ কথা কি বলা যায়? মহালয়া কি আদৌ ‘শুভ’? কাউকে ‘শুভ মহালয়া’ উইশ করা করা কি আদৌ যুক্তিযুক্ত? এনিয়ে কিন্তু বিতর্ক রয়েছে। আগে জেনে নেওয়া যাক এই বিশেষ দিন সম্পর্কে কী বলছে শাস্ত্র।

হিন্দু বিশ্বাস মতে, এই সময় প্রেতলোক থেকে পিতৃপুরুষের আত্মারা ফিরে আসে এই মর্ত্যলোকে। তৈরি হয় এক মহা আলয়। সেই প্রয়াত পূর্বপুরুষদের স্মরণ করার দিনটিই হল মহালয়া। তিল-জল দিয়ে তর্পণ করে তাঁদের পরিতৃপ্ত করা হয়। এই তর্পণ যেমন প্রয়াত বাবা-মা বা পূর্বপুরুষের জন্য, তেমনই সমগ্র জীবজগতের জন্যও।

শুনতে অবাক লাগলেও, মহালয়ার সঙ্গে দুর্গাপুজোর কোনও সরাসরি যোগ নেই। বরং মহালয়ার নেপথ্যে রয়েছে মহাভারতে কর্ণের জীবনের অনুষঙ্গ। পিতৃপুরুষকে স্মরণ করার এই দিনটির সঙ্গেও তাই ‘শুভ’ শব্দটি ব্যবহার করা চলে কি না, তা ভেবে দেখা দরকার।

মহালয়ার এই দিনটি দুর্গাপুজোর শুরু বলেই আজকের বাঙালি জীবনে প্রতিষ্ঠিত হয়ে গিয়েছে। কিন্তু হিন্দু ধর্মানুযায়ী, তার কোনও ভিত্তি নেই। সম্ভবত আকাশবাণী বীরেন্দ্রকৃষ্ণ-বাণীকুমারের গীতি-আলেখ্যটি এই দিনে চালানোর ফলেই এমন ধারণার সূত্রপাত। মনে রাখা দরকার, আকাশবাণীর অনুষ্ঠানটির নাম কিন্তু ‘মহালয়া’ নয়— ‘মহিষাসুরমর্দিনী’। অনুষ্ঠানটি এখন মহালয়ার দিন সম্প্রচারিত হলেও শুরুতে তা সম্প্রচারিত হতো ষষ্ঠীর ভোরে।

কাজেই, সামগ্রিক ভাবে এই ধারণা ছড়িয়ে পড়ায় ইদানীং মহালয়া থেকেই ঢল নামে দুর্গাপুজোর শুভেচ্ছাবার্তার। অবশ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় মূল বিষয়টি উত্থাপন করেও অনেকে সচেতন করতে চাইছেন। যেখানে দাবি, তর্পণের দিন শুভেচ্ছা জানানোর দিন হতে পারে না। আবার এই মতকে কাউন্টার করে পালটা বক্তব্যও রাখেন অনেকে। তাঁদের বক্তব্য, মহালয়াকে ‘শুভ’ বলার মধ্যে ভুল কিছু নেই। বিশেষ দিনে শুভেচ্ছা জানানোই যায়। শুভেচ্ছা জানানোয় আবার নিয়ম, অনিয়ম কীসের?

আসলে পুজোর পরিধি দিন দিন বাড়ছে। এখন কলকাতায় মহালয়ার দিন থেকেই পুজোর উদ্বোধ‌ন শুরু হয়ে যায়। আর উৎসব যেদিন শুরু সেদিন থেকেই শুরু হয়ে যায় পুজোয় শুভেচ্ছা জানানো।

Comments are closed.