সোমবার, আগস্ট ১৯

পায়ে ইলেকট্রনিক ট্যাগিং, শুধরে যাচ্ছে অপরাধীরা, বন্ধ হচ্ছে জেল

দ্য ওয়াল ব্যুরো : অপরাধীদের ফিরিয়ে আনতে হবে সমাজের মূলস্রোতে। তারা যাতে ফের অপরাধের পথে না যায়, সেজন্য নজর রাখতে হবে সর্বক্ষণ। তাই নেদারল্যান্ডসে অপরাধীদের জেল থেকে ছাড়ার সময় পায়ের গোড়ালিতে লাগিয়ে দেওয়া হয় এক ধরনের ইলেকট্রনিক যন্ত্র। তারা কী করছে না করছে, তার ওপরে নজর রাখতে পারে পুলিশ। এতে আশ্চর্য ফল পাওয়া গিয়েছে। শুধরে গিয়েছে বেশিরভাগ অপরাধী। ফলে জেলের আর দরকারই পড়ছে না। একের পর এক জেল বন্ধ করে দিচ্ছে নেদারল্যান্ডস সরকার।

২০১৮ সালের রিপোর্ট অনুযায়ী সারা বিশ্বে যে দেশটিতে সবচেয়ে বেশি লোক জেলে বন্দি থাকে তার নাম আমেরিকা। তার পরেই আছে রাশিয়া আর চিন। কিন্তু নেদারল্যান্ডসের ব্যাপারই আলাদা।

সেদেশে একই কাজে সবাই একই বেতন পায়। লিঙ্গবৈষম্য প্রায় নেই। শিশুদের অধিকার সুনিশ্চিত করা গিয়েছে। খুব কম দেশেই সমাজব্যবস্থা এত সুনিয়ন্ত্রিত।  সেদেশের সরকার অপরাধীদের শাস্তি দেওয়ার বদলে তাদের সংশোধন করার ওপরেই জোর দেয় বেশি। খুব কঠোর শাস্তি কাউকেই দেওয়া হয় না। সর্বোপরি জেল থেকে ছেড়ে দেওয়ার পরে সারাক্ষণ ইলেকট্রনিক ট্যাগিং-এর মাধ্যমে অপরাধীদের মনিটরিং করা হয়। ২০১৮ সালের এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, যারা জেল থেকে ছাড়া পায়, তাদের অর্ধেকই ভবিষ্যতে আর কোনও অপরাধ করে না।

Comments are closed.