শনিবার, অক্টোবর ১৯

চাইলে দল থেকে বেরিয়ে যান, পাশে প্রশান্তকে নিয়ে নেতাদের ধমক মমতার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আগেই প্রশান্ত কিশোরের সঙ্গে বৈঠক করেছেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার নির্বাচনী স্ট্র্যাটেজিস্ট প্রশান্তকে নিয়ে সাংগঠনিক বৈঠক করলেন। আর সেই বৈঠকে দলের পশ্চিম মেদিনীপুরের নেতাদের স্পষ্ট বার্তা মমতার, দলের মতো করে চলতে না চাইলে বেরিয়ে যান।

শুক্রবার বিকেলে তৃণমূল ভবনে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার পর্যালোচনা বৈঠক ছিল। এর আগে বেশ কয়েকটি জেলার লোকসভা নির্বাচনের ফল নিয়ে এমন বৈঠক করেছেন মমতা। তেমনই বৈঠক ছিল এদিন। জেলার তিনটি আসনের মধ্যে দু’টিতে হেরে গিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। এই জেলায় তৃণমূল কংগ্রেসের গোষ্ঠী দ্বন্দ্বের কথা সকলের জানা। সেই গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব মেটাতে নানা পরামর্শ দেওয়ার পাশাপাশি এদিন মমতা বলেন, ”

দ্রুত বুথ ভিত্তিক কমিটি তৈরি করে সংগঠন মজবুত করতে হবে। সকাল ন’টা থেকে দলের অফিসে বসবেন। বিকেল চারটের পর আবার দলের অফিসে বসবেন। মাঝের সময়টা মানুষের সঙ্গে জনসংযোগ বাড়ান।” এর পরেই মমতা বলেন, ”

নিজের মতো করে চলা যাবে না। দলের মতো করে চলতে হবে। নিজের মতো করে চলতে চাইলে, দল থেকে বেরিয়ে যান।”

তৃণমূল নেতাদের কাছে নেত্রীর কাছে এমন ধমক খাওয়া নতুন কিছু নয়। তবে এদিন গোটা ঘটনার সময়েই বৈঠকে হাজির ছিলেন প্রশান্ত কিশোর। এদিন তৃণমূল ভবনে বৈঠক শুরু হওয়ার কিছুক্ষণ পরেই যুব সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে ভবনে আসেন প্রশান্ত। গোটা সময়টাই তিনি বৈঠকে চুপ করে বসেছিলেন। তৃণমূল সূত্রে খবর, এদিন কোনও কথা না বলে দলের নেতাদের উপরে নজর রাখছিলেন প্রশান্ত। শেষে তিনি ও অভিষেক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গাড়িতে করেই তৃণমূল ভবন ছাড়েন।

এর আগে নবান্নে যেদিন প্রশান্ত কিশোর গিয়েছিলেন সেদিনও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গেই যান তিনি। সেদিনই প্রথম স্পষ্ট হয় যে, তৃণমূল কংগ্রেস এবার প্রশান্ত কিশোরের সংস্থার সাহায্য নিতে চলেছে। এর পরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরাসরি এটা স্বীকার না করলেও বলেন, কোনও সংস্থা স্বেচ্ছায় সাহায্য করতেই পারে। এদিন দলের সাংগঠনিক বৈঠকে প্রশান্ত কিশোরের উপস্থিতি নতুন করে পরিষ্কার করল যে দলের ভাবমূর্তি পুনরুদ্ধারে এবার সত্যিই পেশাদারী সাহায্য নিতে চলেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল।

আরও পড়ুন

ঘাসফুলের ভরসা প্রশান্ত কিশোর কে, কত টাকা নেন পিকে, জানুন ১০ তথ্য

Comments are closed.