শনিবার, সেপ্টেম্বর ২১

কফি কমাতে পারে অতিরিক্ত ওজন, বাগে রাখতে পারে সুগারও!

  • 25
  •  
  •  
    25
    Shares

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আপনার অতিরিক্ত কফি আসক্তির জন্য কি অনেকের কাছে কথা শুনতে হয়?  অদূর ভবিষ্যতে আপনিও উল্টে শুনিয়ে দিতেই পারেন, কফি আপনার অতিরিক্ত ওজন কমাবে, আর ব্লাডসুগারও নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করবে।  এই সম্পর্কিত একটি গবেষণা বলছে, কফি আমাদের ‘ব্রাউন ফ্যাট’কে স্টিমুলেট করে বা বলা যায় তাকে কাজে ব্যস্ত থাকতে চাপ দেয়।  এই ব্রাউন ফ্যাট কিন্তু আমাদের শরীরের নিজস্ব ফ্যাট বার্নিং সিস্টেম।  যা আমাদের ফ্যাট ফাইটিং ডিফেন্স সিস্টেম হিসেবে কাজ করে, তাতে আমাদের অতিরিক্ত ওজন তো কমেই, সঙ্গে ডায়াবেটিসও বেশি বাড়তে পারে না।

সায়েন্টিফিক রিপোর্টসজার্নালেও বলা হচ্ছে এই ব্রাউন ফ্যাটই আমাদের শরীরের ক্যালোরিকে তাড়াতাড়ি পুড়িয়ে এনার্জি বা শক্তিতে রূপান্তরিত করে।  ব্রাউন অ্যাডিপোস টিস্যুই ব্রাউন ফ্যাট নামে পরিচিত।  সাধারণত মানুষ সহ যে কোনওরকমের স্তন্যপায়ী প্রাণীর দেহে প্রধানত দুরকমের ফ্যাট থাকে, যার মধ্যে এই ব্রাউন ফ্যাট অন্যতম।  প্রথমদিকে শিশুদের দেহে শুধু এই ফ্যাটের উপস্থিতির কথা বলা হলেও, এখন সমীক্ষায় দেখা গেছে পূর্ণবয়স্ক মানুষের মধ্যেও এই ফ্যাট থাকে।  যাঁদের বিএমএস বা বডিমাসইনডেক্স কম তাঁদের এই ব্রাউনফ্যাট বেশি থাকে।

নটিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মাইকেল সাইমণ্ড এই গবেষণার সাথে যুক্ত।  সাইমণ্ডের মতে এই ফ্যাট আমাদের শরীরের অন্যান্য অতিরিক্ত অবাঞ্ছিত ফ্যাট এবং সুগারকে তাড়াতাড়ি গলিয়ে ফেলতে পারে।  ফলে রক্তের লিপিডের মাত্রা অনেকটাই ব্যালেন্সড থাকে আর ব্লাডসুগারও নিয়ন্ত্রণে থাকে।  ফলে ওজনও কমতে থাকে সহজে।  তবে মানুষের উপর প্রথমেই সরাসরি এই পরীক্ষা করা হয়নি।  গবেষকদের টিম স্টেম সেলের উপরে এই গবেষণা চালিয়েছেন প্রথমে।  সেখানে দেখা গেছে কফিতে থাকা ক্যাফিন এভাবেই কাজ করে।  তারপরে মানুষের উপরে এই পরীক্ষা করা হয়।  শরীরের ব্রাউন ফ্যাট নিয়ে পরীক্ষা করার জন্য থার্মাল ইমেজিং পদ্ধতি ব্যাবহার করা হয়।

সাইমণ্ড আরও বলছেন, “আমাদের আগের কাজ থেকে আমরা জানতাম যে ব্রাউনফ্যাট প্রধানত মানুষের ঘাড়ের কাছে থাকে।  তাই আমরা সেই ফ্যাট অত্যন্ত গরম হয়ে গেলে কী কী কাজ করে তা সরাসরি এক্স-রে করে দেখতে পেয়েছি।  ফলাফলগুলি ইতিবাচক ছিল যথেষ্টই।  আমাদের এখন নিশ্চিত হতে হবে যে, কফিতে থাকা উপাদানগুলির মধ্যে অন্যতম একটি হল ক্যাফিন, সেটাই কতটা উদ্দীপক হিসাবে কাজ করছে এক্ষেত্রে, নাকি অন্য কোনও উপাদান আছে যা ব্রাউনফ্যাটকে সক্রিয় করছে।  আমরা আপাতত ক্যাফিনের সাবস্টিটিউট বা অন্য কোনও পরিপূরক এক্ষেত্রে আছে কি না দেখছি”।

আপাত দৃষ্টিতে এখনও ওজন কমা বা সুগার নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে ক্যাফিনের জয়ই বলা যায়, তবু সাইমণ্ড জানান আরও কিছুটা পরীক্ষা তাঁরা করতে চান।  অতএব যতদিন না সেই পরীক্ষার ফলাফল আসছে, ততদিন আপনি আশা-আশঙ্কার দোলাচলে হলেও কফির পক্ষে সওয়াল করতেই পারেন।

Comments are closed.