বুধবার, অক্টোবর ১৬

‘আমায় আর পাবে না তুমি’, স্ত্রীকে এ কথা বলেই নিজের মাথায় গুলি চালালেন পুলিশ!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রাত আটটা বেজে ১৫ মিনিট। ভিড়ে ঠাসা রাস্তা। রোজকার মতোই গাড়ি, বাস, লরিতে ভর্তি দ্বিতীয় হুগলি সেতু। সে সবের মধ্য়েই একটি পুলিশের প্রিজ়ন ভ্যান ছুটে আসছিল বর্ধমান থেকে। ভেতরে অপরাধীকে সঙ্গে নিয়ে হেস্টিংস থানার পুলিশ। তাঁদেরই মধ্যে রয়েছেন তরুণ মান্ডি, রিজ়ার্ভ ফোর্সের সদস্য। আচমকা সার্ভিস রিভলভার বার করে নিজের কপালে গুলি চালিয়ে বসলেন তিনি!

মঙ্গলবারের এই ঘটনায় এখনও ধোঁয়াশায় তদন্তকারী অফিসারেরা। জানা গিয়েছে, আত্মঘাতী হওয়ার ঠিক আগে স্ত্রীয়ের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলেন তরুণবাবু। জানা গিয়েছে, তিনি বলেন, “আমি আর ফিরব না, আমাকে আর পাবে না তুমি।”

এই ফোনকলের ঠিক পরেই নিজের সার্ভিস রিভলভার দিয়ে কপালে গুলি করে আত্মঘাতী হন তিনি। প্রিজন ভ্যানের মধ্যেই ঘটনাটি ঘটে যাওয়ায় স্তম্ভিত হয়ে যান সকলে। জানা গিয়েছে, সামনে, চালকের ঠিক পাশের আসনেই বসেছিলেন তরুণ মান্ডি। হঠাৎ কেন এমন হল, থতমত হয়ে পড়েন সকলে।

রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে তাঁকে এসএসকেএমে নিয়ে যাওয়া হলে, চিকিৎসকেরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

সূত্রের খবর, আত্মঘাতী পুলিশ অফিসার তরুণ কুমার মান্ডি আদতে বাঁকুড়ার বাসিন্দা। হাওড়ার ডোমজুড়ে একটি ভাড়াবাড়িতে স্ত্রী, মেয়েকে নিয়ে থাকতেন তিনি। কিন্তু ঠিক কী কারণে তরুণ বাবু আত্মঘাতী হলেন, সে বিষয়ে ধোঁয়াশায় তদন্তকারী কর্তারা।

কেউ বলছেন, মানসিক চাপে ছিলেন তরুণ। কিন্তু কী সেই চাপ, নিশ্চিত করতে পারেননি কেউ-ই। কেউ আবার বলছেন, অস্বাভাবিক কাজের চাপেই এই সিদ্ধান্ত। তবে গোটা ঘটনার পেছনে অন্য কোনও কারণ রয়েছে কি না, খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

মঙ্গলবার এক দুষ্কৃতীকে ধরতে বর্ধমানে গিয়েছিলেন তিনি। সেখান থেকেই তাকে গ্রেফতার করে কলকাতা ফিরছিলেন। ফেরার পথে ঘটে এমন মর্মান্তিক ঘটনা।

Comments are closed.