শুক্রবার, নভেম্বর ২২
TheWall
TheWall

লাইফ জ্যাকেটহীন ফেরি পারাপার, কনভয় থামিয়ে শুভেন্দু নামলেন ঘাটে, অবাক যাত্রীরা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ‘সারপ্রাইজ ভিজিট’কে কি রুটিনে পরিণত করে ফেললেন রাজ্যের পরিবহণ ও সেচমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী?

দু’দিন আগেই আসানসোল-দিঘা বাসে উঠে পড়েছিলেন শুভেন্দু। শনিবার লাইফ জ্যাকেট ছাড়া ফেরি পারাপার হচ্ছে দেখে গাড়ি থেকে নেমে সোজা পৌঁছে গেলেন ফেরিঘাটে।

এ দিন মুর্শিদাবাদে গিয়েছিলেন পরিবহণমন্ত্রী। গাড়ি করে যাওয়ার সময় দেখেন মুর্শিদাবাদের সদরঘাটে ফেরি পারাপারকারীদের গায়ে লাইফ জ্যাকেট নেই। অথচ নৌকাতে সাজানো রয়েছে সেই জ্যাকেট। ঘাটের কর্মীদের উদ্দেশে মন্ত্রীর বার্তা, যাত্রী নিরাপত্তার জন্য যে নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে তা অক্ষরে অক্ষরে মানতে হবে। খানিকটা নীচের দিকে নেমে গিয়ে নৌকায় থাকা যাত্রীদেরও মন্ত্রী অনুরোধ করে বলেন, আপনারা এগুলি ব্যবহার করুন। এগুলি কী জন্য দেওয়া হয়েছে?

পুজোর মধ্যেই মালদহের চাঁচলে নৌকাডুবির ঘটনা ঘটেছিল। জগন্নাথধাম ঘাটে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার পর যাত্রীরা, ইটাহারের বাইচ প্রতিযোগিতা দেখতে যাচ্ছিলেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছিলেন, পুলিশ বারবার অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে নৌকা চলাচলে নিষেধ করেছিলেন। কিন্তু, তাঁকে অগ্রাহ্য করেই যাত্রী নিয়ে এগিয়ে যায় নৌকাটি।

আরও পড়ুন: দিঘার বাসে হঠাৎ মন্ত্রী, তারপর…

চাঁচলেও দেখা গিয়েছে, লাইফ জ্যাকেটের ব্যবস্থা ছিল না।” বিজ্ঞাপন দিয়ে সরকারের তরফে বলা হয়, এই দুর্ঘটনা এড়াতে মানুষের সচেতনতা প্রয়োজন। একটি লঞ্চ বা নৌকার কতটা বহন ক্ষমতা তা জেনে যেন যাত্রী তাতে ওঠেন সেই আবেদনও করা হয় সরকারের তরফে।

এ দিন সদরঘাটে পৌঁছে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মীদের থেকে মন্ত্রী জানতে চান, এই ঘাট কারা চালায়? জেলা পরিষদ নাকি ভূমি রাজস্ব দফতর? আলো, জেটির গেটের জন্য ১০ লক্ষ করে টাকা দেওয়া হয়েছে বলেও জানান নন্দীগ্রামের বিধায়ক। কনভয় থামিয়ে নেমে মন্ত্রী বুঝিয়ে দিলেন, শুধু নির্দেশিকা জারি করেই থেমে থাকবে না তাঁর দফতর। মাঠে নেমে সরেজমিনে দেখা হবে কতটা বাস্তবায়িত হচ্ছে।

বুধবার দিঘার বাসে উঠে পড়েছিলেন মন্ত্রী। চমকে যান বাসের কন্ডাক্টর থেকে যাত্রী সকলেই। উঠেই টিকিট চেকিং শুরু করে দেন নন্দীগ্রামের বিধায়ক। এক যাত্রীর টিকিট দেখার পরে খোঁজ নেন অন্যান্য যাত্রীরাও টিকিট কেটেছেন কিনা। একে একে যাত্রীদের জিজ্ঞাসা করে জানতে পারেন সকলেই টিকিট কেটে যাত্রা করছেন। এর পরেই মন্ত্রী যাত্রীদের উদ্দেশে বলেন, কেউ সরকার রাজস্ব ফাঁকি দেবেন না। এক টাকাও যেন ফাঁকি না দেওয়া হয়। এ দিনও লাইফ জ্যাকেট নিয়ে ফেরিঘাটে মন্ত্রীর হঠাৎ উপস্থিতিতে চমকে গেলেন অনেকেই।

পড়ুন দ্য ওয়াল-এর পুজোসংখ্যার বিশেষ লেখা…

Comments are closed.