মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৫

বিহারে শাসক জোটে ফাটল, বন্যার জন্য নীতীশকে দুষছে বিজেপি

  • 28
  •  
  •  
    28
    Shares

দ্য ওয়াল ব্যুরো : গত কয়েকদিনে প্রবল বন্যায় পটনায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন হাজার হাজার মানুষ। বন্যার পরে শহর জুড়ে দেখা দিয়েছে ডেঙ্গু। বন্যায় রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে মারা গিয়েছেন অন্তত ১০০ জন। বন্যাত্রাণে ব্যর্থতার জন্য রাজ্য জুড়ে দেখা দিয়েছে জনরোষ। এই পরিস্থিতির জন্য মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের দল জনতা দল ইউনাইটেডকে দায়ী করছে বিজেপি। বিহারে জেডিইউয়ের সঙ্গে জোট বেঁধে ক্ষমতায় রয়েছে। বিজেপি জোট শরিকের বিরুদ্ধে সরব হওয়ায় বিহারে সরকারের স্থায়িত্ব নিয়ে দেখা দিয়েছে সংশয়।

পটনার বন্যায় আটকে পড়েছিলেন খোদ উপমুখ্যমন্ত্রী সুশীল মোদী। বিজেপি নেতা সুশীল মোদীকে জলমগ্ন এলাকা থেকে উদ্ধার করেছে এনডিআরএফ। এরপরে নীতীশ কুমারের সমালোচনা করে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিং বলেছেন, টিম ভালো ফল করলে সবাই যেমন ক্যাপটেনের প্রশংসা করে, খারাপ ফল করলেও তাঁকেই দায় নিতে হয়। ক্যাপটেন বলতে নীতীশকেই বুঝিয়েছেন গিরিরাজ। তিনি গত শুক্রবার থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় টানা বিহারের মুখ্যমন্ত্রীর সমালোচনা করে আসছেন।

বিহারের নগরোন্নয়নমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা সুরেশ শর্মা বন্যার জন্য দোষ চাপিয়েছেন অফিসারদের ওপরে। তিনি বলেছেন, অফিসাররা আমার কথা শোনেনি। তাদের শাস্তি পাওয়া উচিত। অভিযোগ, পটনায় জলনিকাশি ব্যবস্থা ঠিকমতো কাজ না করার জন্যই বন্যা হয়েছে। জল জমার পর তা দ্রুত বার করার জন্য পাম্পও চালানো হয়নি।

বিজেপির প্রাক্তন সাংসদ সৈয়দ শাহনওয়াজ হুসেন বলেন, গিরিরাজ সিং যে সমালোচনা করেছেন, নীতীশ কুমার তা এড়িয়ে যেতে পারেন না। নীতীশ নিজে এখনও বিজেপির সমালোচনার জবাব দেননি। কিন্তু তাঁর দলের মুখপাত্র কে সি ত্যাগী বলেন, বন্যার জন্য প্রত্যেকে দায়ী। গিরিরাজ দায়িত্বজ্ঞানহীন মন্তব্য করেছেন। বিহারের মন্ত্রী তথা জেডি ইউ নেতা নীরজ কুমার বলেন, গিরিরাজকে মনে করিয়ে দেওয়া উচিত, আমাদের রাজ্যে প্রাকৃতিক বিপর্যয় ঘটেছে। রাজনৈতিক বিপর্যয় হয়নি। এনডিএ জোট এখনও অটুট আছে।

বিহারে জেলবন্দি প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লালুপ্রসাদ যাদবের দল আরজেডি সমর্থন করেছে গিরিরাজ সিংকে। দলের দুই প্রবীণ নেতা রঘুবংশ প্রসাদ সিং ও মনোজ ঝা প্রকাশ্যেই বলেছেন, গিরিরাজ যা সমালোচনা করেছেন, তা ন্যায্য। অনেকেই মনে করছেন, লালুকে জেল থেকে মুক্ত করার জন্য গোপনে বিজেপির সঙ্গে বোঝাপড়া করেছে আরজেডি।

Comments are closed.