শুক্রবার, এপ্রিল ২৬

কাশ্মীরের তরুণ-তরুণীদের দলে টানতে পাকিস্তানের ভরসা সোশ্যাল মিডিয়া! সতর্ক করল সেনা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: জম্মু ও কাশ্মীরের সাধারণ মানুষের জন্য বড় সতর্কতা জারি করল সেনা। সেনাবাহিনীর দাবি, কাশ্মীরের যুব সমাজের মগজধোলাই করে তাদের জঙ্গিবৃত্তিতে টেনে আনতে মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে পাকিস্তান। আর এই উদ্দেশ্যে তারা ব্যবহার করছে সোশ্যাল মিডিয়া।

সেনাবাহিনীর নর্দার্ন কম্যান্ডের জেনারেল অফিসার কম্যান্ডিং-ইন-চিফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল রণবীর সিং এই সতর্কতা জারি করেছেন। তাঁর বার্তা, সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করে কাশ্মীরি যুবক-যুবতীদের সন্ত্রাসের পথে নিয়ে যাচ্ছে পাকিস্তান। তিনি আরও জানান, পাকিস্তান ও পাক-অধিকৃত কাশ্মীরে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ ক্রমেই বাড়ছে। এমনকী, কাশ্মীর নিয়ে বিরোধিতা তৈরি করে নতুন নতুন সংগঠনের প্রক্রিয়াও চালিয়ে যাচ্ছে তারা। তাদের উদ্দেশ্যে কাশ্মীরের মানুষকে উত্তেজিত করে তুলে, লড়াই বাধিয়ে, উপত্যকাকে আবার অশান্ত করে তোলা।

সেনাপ্রধান এ-ও জানান, বিষয়টি আর মোটেই হাল্কা ভাবে গ্রহণ করা যাচ্ছে না। এই নিয়ে ভারত সরকার ও সেনাবাহিনী যথেষ্ট সতর্কতা অবলম্বন করছে। কারণ কাশ্মীরকে নিশানা করা হলেও, সন্ত্রাসবাদের বিষয়টি কেবল ভারতের নয় গোটা বিশ্বের কাছেই একটি উদ্বেগের বিষয়।

সেনার কাছে খবর, সম্প্রতি ফেসবুকে ও ইউটিউবে কিছু পেজ খুলে নানা রকম প্রচার চালাচ্ছে জঙ্গি সংগঠনগুলি। অচেনা নম্বর থেকে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপেও অ্যাড করা হচ্ছে কাশ্মীরের তরুণ-তরুণীদের। পুরো ব্যাপারটাই পাকিস্তান থেকে অপারেটেড হচ্ছে বলে আইডি খুঁজে বার করে তার পিছনের ব্যক্তিটিকে চিহ্নিত করা বেশ মুশকিল।

রণবীর সিং জানিয়ে দিয়েছেন, পাকিস্তানের এই কৌশল নিয়ে ভারতীয় সেনা দ্বিমুখী অবস্থান নিতে চলেছে। তিনি জানিয়েছেন, সন্ত্রাস দমনে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার আরও কত ভাবে করা যেতে পারে, তা নিয়ে তৎপরতা জারি রয়েছে সব মহলে। তা ছাড়া বিভিন্ন ভাবে কাশ্মীরি যুবক-যুবতীদের কাউন্সেলিংও চলছে সেনাক তরফে। যাতে তারা কোনও ভাবে প্রভাবিত হয়ে বিপথে না যায়।

পাশাপাশি সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়েও কথা বলেছেন তিনি। জানিয়েছেন, সার্জিক্যাল স্ট্রাইক যুদ্ধের একটা কৌশলগত পদক্ষেপ। ফলে প্রয়োজন পড়লে যে কোনও সময় ওই ধরনের পদক্ষেপ করতে পারে ভারতীয় সেনা। তার জন্য প্রস্তুতি আছে সমস্ত স্তরে। তবে একান্ত প্রয়োজন না পড়লে এই পথ নেওয়া হয় না বলেই জানালেন তিনি।

একই সঙ্গে তিনি ভারতীয় সেনা জওয়ান ঔরঙ্গজেবের সাম্প্রতিক মৃত্যু নিয়ে মুখ খুলেছেন। জানিয়েছেন, এক বা দু’জন সেনা জওয়ান ইচ্ছাকৃত ভাবে বা ভুল করে ঔরঙ্গজেবের বিষয়টি প্রকাশ করে ফেলেছিলেন। আর সেটারই সুবিধা নিয়েছে জঙ্গিরা। ঔরঙ্গজেবকে পুলওয়ামা থেকে অপহরণ করেছিল জঙ্গিরা। ১৪ জুন, ইদের আগের দিন তাঁর গুলিবিদ্ধ মৃতদেহ উদ্ধার হয় বলে সেনাবাহিনী সূত্রের খবর। 

Shares

Comments are closed.