Latest News

কর্তব্যপথের কর্তব্য

একটাই রাস্তা। শুরুতে নাম ছিল কিংসওয়ে। তারপর হয়েছিল রাজপথ। অবশেষ কর্তব্যপথ (Kartyabapath)।

Image - কর্তব্যপথের কর্তব্য

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) এ বছর স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন গোলামির চিহ্ন, প্রতীকগুলি একে একে মুছে ফেলা হবে। রাজপথের নাম বদলে ক’দিন আগে কর্তব্যপথ রাখা প্রধানমন্ত্রীর সেই ঘোষণারই অংশ।

প্রশ্ন হল, নরেন্দ্র মোদী নিজে কি এই কর্তব্যপথে হাঁটার যোগ্য ব্যক্তি? ধরেই নেওয়া যায়, দেশবাসীর প্রতি ন্যায্য কর্তব্যপালনের অঙ্গীকারের দৃষ্টান্ত হিসাবেই প্রধানমন্ত্রী রাস্তার এমন নাম রেখেছেন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী হিসাবে নরেন্দ্র মোদীর ভূমিকার চুলচেরা বিশ্লেষণ করলে বলতে হয়, এখনও কর্তব্যপালনের তেমন কোনও নজির তিনি স্থাপন করেননি, যা তাঁকে রাজপথকে কর্তব্যপথ নামকরণের নৈতিক শক্তির অধিকারী করেছে।

তাঁর সরকারের সময়ে দেশ সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ, হানাহানি, সংখ্যালঘুদের উপর নিপীড়ন, জিনিসপত্রের আকাশছোঁয়া দাম, লাগামহীন বেকারি, কর্মহীনতার শিকার। ক্ষুধার মানদণ্ড, দুর্নীতি, মানবাধিকার, ব্যক্তি স্বাধীনতা, সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার মতো অধিকারের প্রশ্নে বিশ্ব তালিকায় ভারতের স্থান লজ্জাজনক এবং ক্রমশ নিম্নগামী।

বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর শাসনকালেই বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্য রক্ষার মৌলিক কাঠামোটি ঠুনকো হয়ে পড়েছে। বিপন্ন জাতীয় সংহতি, কেন্দ্র-রাজ্য সম্পর্ক, আঞ্চলিক স্বাধিকার। গোলামির চিহ্ন মুছে ফেলার নামে আপনার দল ও সরকার বহু জেলা, জায়গা, রাস্তা, মহল্লার নাম বদলে ইতিহাসকেও মুছে দিচ্ছে।

সংসদে আপনার সরকার জবাবদিহির কর্তব্যসাধন করে স্বাধীনতা দিবসে আপনি নারীর ক্ষমতায়নের কথা বলেন, অথচ গণধর্ষণ, খুনে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্তদের আপনারই দল শাসিত রাজ্য সরকার আগাম মুক্তি দিলেও আপনি রা কাড়েন না। ঘৃণা ভাষণের বিরুদ্ধে কোনও নিন্দাবাক্য শোনা যায় না আপনার মুখে। আসলে আপনি কর্তব্যবিমুখ প্রধানমন্ত্রী।

তবু আপনি নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী। সংসদে আপনার দলেই আছে ৩০৩ সাংসদের সমর্থন। কর্তব্যপথ ধরে হাঁটার সাংবিধানিক ও আইনি অধিকার তাই আপনার নিশ্চয়ই আছে। কিন্তু নৈতিক অধিকার আছে কি? মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশবাসী এ প্রশ্নের জবাব আপনার কাছে চায় না। প্রশ্নটা আপনি নিজেকে করলেই দেশবাসীর জবাব পাওয়া হয়ে যাবে।

উপাচার্য নিয়োগ মামলা ঘিরে বৃহত্তর বিতর্কের মুখে রাজ্য-রাজ্যপালের সাংবিধানিক এক্তিয়ার

You might also like