Latest News

রোগা হতেই হবে, ৭ মাসে ৬২ কেজি ওজন কমালেন যুবক, কীভাবে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দীর্ঘদিন ধরেই ওজন কমানোর (weight loss) চেষ্টা করছিলেন ব্রায়ান। চিরাচরিত যা কিছু পদ্ধতি সবই ব্যর্থ হয়েছে, ১ কেজিও কমেনি ওজন। বীতশ্রদ্ধ হয়ে শেষ পর্যন্ত এমন এক ‘পদ্ধতি’ অবলম্বন করলেন তিনি, যা কৃচ্ছসাধনের নামান্তর। ৭ মাস সেই কঠিন তপস্যার ফল যা হল, তাতে হতবাক ব্রায়ানের বন্ধু থেকে পরিবারের সকলে। ওইটুকু সময়ে এক ধাক্কায় ৬২ কেজি (lost 62 Kgs) ওজন কমিয়ে ফেলেছেন ব্রায়ান (Bryan O’keefe)!

ব্রায়ান ও’কিফ আয়ারল্যান্ডের কর্ক শহরের বাসিন্দা। দীর্ঘদিন ধরেই বেশি ওজনের কারণে নানা সমস্যায় ভুগছিলেন ব্রায়ান। রোগা হওয়ার হাজার চেষ্টা করেও কিছুতেই লাভ হয়নি। ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাস, ব্রায়ানের ওজন তখন প্রায় ১৫৩ কেজি! ব্রায়ান ঠিক করলেন, এবার এমন কিছু করতে হবে, যা চিরাচরিত ওজন কমানোর পদ্ধতির তুলনায় একেবারে আলাদা। আর তা করতে গিয়েই দেশ ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিলেন ব্রায়ান। বাবা-মা, বন্ধুবান্ধব, সকলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করলেন ব্রায়ান। তারপর আয়ারল্যান্ড থেকে পাড়ি দিলেন সুদূর স্পেনে।

স্পেনের ম্যালোরকাতে গিয়ে নতুন আস্তানা গাড়লেন ব্রায়ান। নয়া ঠিকানায় তাঁর ধ্যান জ্ঞান হয়ে উঠল ওজন কমানো। স্বাস্থ্যকর ডায়েট ফলো করা তো শুরু হল বটেই, সঙ্গে ব্যায়ামও শুরু করলেন ব্রায়ান। প্রাথমিকভাবে দিনে ৯০ মিনিট হাঁটা দিয়েই শুরু হল। তারপর আস্তে আস্তে ব্যায়ামের পরিমাণ বাড়িয়েছেন। সেই পরিশ্রমের সঙ্গী হল প্রতিদিন ক্যালোরি গ্রহণের পরিমাণ কমানো। এভাবেই কেটে গেল সাত সাতটা মাস।

ওয়েট লস জার্নির গল্প নিজের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডলে শেয়ার করেছেন ব্রায়ান। তিনি জানিয়েছেন এই সাত মাসে এক দিনের জন্যও ডায়েট কিংবা ব্যায়াম করা বন্ধ করেননি তিনি। এখন তো স্বাস্থ্য সচেতন হওয়ার নেশা এমনভাবেই চেপে বসেছে ব্রায়ানের মাথায়, যে, এখন দিনে অন্তত ৫ ঘণ্টা জিমে সময় কাটে তাঁর।

‘কতবার যে চোট পেয়েছি, হিসাব রাখিনি। কিন্তু আমি হার মানিনি। যন্ত্রণাকে সঙ্গী করেই ট্রেনিং চালিয়ে গেছি আমি। প্রত্যেকদিন একটু একটু করে ব্যায়ামের পরিমাণ বাড়িয়েছি। প্রথম ৩ মাস তো খাওয়া, ঘুমানো এবং ব্যায়াম করা ছাড়া আর কিছুই করতে পারতাম না। সোফায় পড়ে থাকতাম তারপর। কিন্তু ৪ মাস পর থেকে শরীর আস্তে আস্তে নতুন এই পরিবর্তনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে শুরু করল,’ জানিয়েছেন ব্রায়ান। জিমে ওয়েট ট্রেনিংয়ের পাশাপাশি সাইকেল চালানো এবং সাঁতারও এখন তাঁর সাপ্তাহিক রুটিনের অংশ।

কঠোর পরিশ্রমের পর এখন ব্রায়ানের ওজন ৯০ কেজি। দেশে ফেরার পর তাঁকে দেখে চমকে উঠেছেন সকলে। হতবাক নেটিজেনরাও। তবে ওজন কমাতে চাইলে সঠিক ডায়েট এবং পরিশ্রমের যে সত্যিই কোনও বিকল্প নেই, তা এক বাক্যে মানছেন সকলে।

ডিএ একটু কম আছে, তবে গেল গেল রব কেন? প্রশ্ন মানস, চন্দ্রিমার

You might also like