Latest News

গণেশজননী নয়, মৃত্যুভয় কাটাতে দেবী দুর্গার এই বিশেষ মাতৃরূপ পুজো করুন আজ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আজ মহাপঞ্চমী। এই বিশেষ তিথিতে মাতৃরূপে পুজো পান দেবী পার্বতী। গনেশ-জননী উমা বাঙালির বড় চেনা রূপ। কিন্তু নবরাত্রির পঞ্চম দিনে দেবী দুর্গা পূজিতা হন কার্তিক-জননী রূপে। স্কন্দ অর্থাৎ কার্তিকের মা, তাই দেবীর এই বিশেষ রূপের নাম স্কন্দমাতা। (Skandmata)

দেবী স্কন্দমাতা চতুর্ভুজা। বাহন সিংহের উপর ছেলে কোলে নিয়ে পদ্মাসনে বসে থাকেন দেবী। উপরের দুটি হাতে দেবী ধরে থাকেন দুটি পদ্মফুল, নীচের একটি হাত বরদা মুদ্রায় থাকে এবং অন্য হাতে ধরে থাকেন স্কন্দ অর্থাৎ কার্তিককে। দেবীর কোলে স্কন্দের যে মূর্তিটি দেখা যায়, সেটি আমাদের বাংলায় সচরাচর দেখা কার্তিক মূর্তির চেয়ে বেশ কিছুটা আলাদা। এই শিশু কার্তিকের হাতে তীর-ধনুক থাকে বটে, কিন্তু এঁর ছয়টি মাথা। ষড়ানন কার্তিকের এই শিশুমূর্তিটিই শোভা পায় দেবী স্কন্দমাতার (Skandmata) কোলে।

পুরাণমতে, তারকাসুর বর পেয়েছিল মহাদেবের সন্তান ছাড়া কেউ তাঁকে বধ করতে পারবে না। হর-পার্বতীর বিয়ের পর দেবতারা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছিলেন মহাদেবের সন্তানের জন্মসংবাদের। কিন্তু রতির অভিশাপ ছিল দেবী পার্বতীর উপর। তাই মিলনকালে শিবের তেজ দেবীর শরীরে প্রবেশ করেই আবার ছিটকে পড়ল মাটিতে। পৃথিবী সে তেজ সহ্য করতে না পেরে আগুনে ছুঁড়ে ফেললেন। স্বয়ং অগ্নিদেবও ধারণ করতে পারলেন না সেই তেজ। ছুঁড়ে ফেললেন গঙ্গায়। গঙ্গাও নাচার হয়ে শরবনে নিক্ষেপ করলেন সেই মহাতেজ। আর সেই শরবনেই জন্ম নিল শিব পার্বতীর পুত্র। সুকুমার, তপ্ত কাঞ্চনবর্ণের এই শিশুর ছয় মাথা। ইনিই দেবসেনাপতি কার্তিক বা স্কন্দ।

Image - গণেশজননী নয়, মৃত্যুভয় কাটাতে দেবী দুর্গার এই বিশেষ মাতৃরূপ পুজো করুন আজ

স্কন্দ ও স্কন্দমাতা দুর্গা উভয়েই তারকাসুর বধে দেবতাদের সাহায্য করেছিলেন, তাই মাতাপুত্রের পূজা একসঙ্গে করাই নিয়ম। দেবী স্কন্দমাতা সৌর মণ্ডলের অধিকারী দেবী (Skandmata)। সবরকম সাংসারিক, কায়িক ও লৌকিক ভয়ভীতি থেকে মুক্ত হয়ে দেবীর আরাধনা করতে হয়।

দেবীর প্রণাম মন্ত্র-
সিংহাসনগতা নিত্যং পদ্মাশ্রিতকরদ্বয়া।
শুভদাস্তু সদা দেবী স্কন্দমাতা যশস্বিনী।।
(Skandmata)

দেবী স্কন্দমাতা প্রেম এবং মাতৃত্বের প্রতীক। তাঁর পুজো করলে শক্তি, সমৃদ্ধি এবং সবরকম পার্থিব সুখ মেলে। সুখী দীর্ঘ বিবাহিত জীবন এবং সন্তান লাভের আশায় মহিলারা লাল ফুল, সিঁদুর আলতা দিয়ে স্কন্দমাতার পুজো করেন। পঞ্চমী তিথিতে দেবীর পুজোর দুর্গা সপ্তশতী কথার সপ্তম অধ্যায় পাঠ করার নিয়ম আছে। দেবীর পছন্দের রঙ সাদা। ভক্তেরা পুজোর দিন দেবীর আশীর্বাদ পেতে এই রঙের পোশাক পরেন। এইদিন প্রসাদ হিসেবে পাকা কলার ভোগ দেওয়া হয় দেবীকে।

You might also like