Latest News

পাহাড়ের বুকে ঝুলন্ত রেস্তোরাঁ সাজিয়েছে মানালি! ১৬০ ফুট উঁচুতে বসেই জমিয়ে পেটপুজো

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মাটি থেকে ১৬০ ফুট উঁচুতে বসে পাত পেড়ে খাওয়াদাওয়া! ভাবা যায়! মানালিতে সম্প্রতি এমনই এক কার্যত ‘অসম্ভব’কে সম্ভব করা হয়েছে। পাহাড়ের কোলে তৈরি হয়েছে ঝুলন্ত রেস্তোরাঁ (Hanging Restaurant in Manali)।

fly dining

মানালির এই অত্যাশ্চর্য রেস্তোরাঁর নাম ফ্লাই ডাইনিং (Fly Dining)। পর্যটকদের তা যেন চুম্বকের মতো টানছে। লাঞ্চ হোক কিংবা ডিনার, ফ্লাই ডাইনিংয়ে সবই মিলছে আকাশছোঁয়া উচ্চতায়। হিমাচল প্রদেশে তো বটেই, পাহাড়ের কোলে ঝুলন্ত রেস্তোরাঁ এই প্রথম, দাবি উদ্যোক্তাদের। এও বলা হচ্ছে, মানালির এই ‘ফ্লাই ডাইনিং’ পৃথিবীর সবচেয়ে উঁচু ঝুলন্ত রেস্তোরাঁ।

Hanging Restaurant in Manali

এই রেস্তোরাঁয় ২৪টি আসনের একটি টেবিল রয়েছে। তা ক্রেনের সাহায্যে তোলা হয়েছে ১৬০ ফুট উঁচুতে। শূন্যেই দোলে সেই টেবিল। তার সঙ্গে জোড়া রয়েছে ২৪টি চেয়ার। এই রেস্তোরাঁয় যাঁরা খেতে বসেন, তাঁদের প্রত্যেকের শরীরে বেঁধে দেওয়া হয় সিট বেল্ট। পাহাড়ের কোলে শূন্যে ঝুলন্ত সেই রেস্তোরাঁয় বসে জিভে জল আনা সব খাবারে কামড় বসান পর্যটকরা। খেতে খেতেই প্রকৃতির ঐশ্বরিক সৌন্দর্য উপভোগ করেন তাঁরা। মানালিতে এই রেস্তোরাঁ এখন পর্যটকদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছে (Himachal Pradesh)।

Hanging Restaurant

মানালির ফ্লাই ডাইনিং রেস্তোরাঁর মালিক দমন কাপুর। তিনি বলেন, ঝুলন্ত রেস্তোরাঁ গোয়া, নয়ডাতেও আছে। তবে পাহাড়ে এমন রেস্তোরাঁ আমাদের দেশে আর কোথাও নেই। মানালিতেই প্রথম। পর্যটকদের এই রেস্তোরাঁয় বসার জন্য যা কিছু সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া দরকার, তা নেওয়া হয়েছে। সবরকম সুরক্ষার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন: ছোট্ট এই রেলস্টেশনে যেন সময় থমকে গেছে, কোথায় বলুন তো!

এই রেস্তোরাঁয় খাওয়াদাওয়ার পাঁচটি পর্ব রয়েছে। দুটি লাঞ্চ সেশন, দুটি ডিনার সেশন ছাড়াও রয়েছে একটি সানডাউনার সেশন। প্রতি সেশনের সময়সীমা ৪৫ মিনিট। পর্যটকেরা এখানে নির্দিষ্ট সংখ্যক টেবিল বুক করতে পারেন, অথবা চাইলে পুরো টেবিলটাই বুক করতে পারেন নির্দিষ্ট সেশনের জন্য।

fly dining

আরও পড়ুন: ট্র্যাভেলরদের স্বপ্ন নর্ডিক রিজিয়ন! অনিন্দ্যসুন্দর প্রকৃতির হাতছানি এড়ানোই দায়

মানালির পাহাড়ের বুকে এই রেস্তোরাঁ তৈরিতে খরচ পড়েছে ৯ কোটি টাকার কিছু বেশি। এখানে খাওয়াদাওয়ার প্যাকেজের খরচ অবশ্য একটু বেশিই। মাথাপিছু ৩৯৯৯ টাকা দিতে হয় রোমাঞ্চকর এই অভিজ্ঞতার জন্য। এতে ইনসিওরেন্স, গান-বাজনা এবং ব্যক্তিগত ফটোগ্রাফি চার্জ যোগ করা রয়েছে। মাত্র কয়েকদিন হয়েছে এই রেস্তোরাঁ চালু হয়েছে। ইতিমধ্যেই ফ্লাই ডাইনিংয়ের জনপ্রিয়তা তুঙ্গে। হিমাচল প্রদেশের পর্যটন শিল্পকে এই রেস্তোরাঁ আরও সমৃদ্ধ করবে বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: পকেটে চাপ না দিয়েই বিদেশ ঘুরে আসুন! রইল ৭টি সস্তা ট্রিপের খোঁজ

You might also like